default-image

এই ড্রয়ের পর ৩৫ ম্যাচে ৫৫ পয়েন্ট নিয়ে ষষ্ঠ স্থানে আছে ইউনাইটেড। ৩৩ ম্যাচে ৬৬ পয়েন্ট নিয়ে চেলসি আছে তৃতীয় স্থানে। এই দুই দলের মাঝে আছে আর্সেনাল ও টটেনহাম। চতুর্থ স্থানে থাকা আর্সেনালের পয়েন্ট ৩৩ ম্যাচে ৬০। সমান ম্যাচে ৫৮ পয়েন্ট নিয়ে পঞ্চম স্থানে আছে টটেনহাম।

ইউনাইটেডের শেষ চারে থেকে লিগ শেষ করার আশা বাঁচিয়ে রাখার লড়াইয়ে রোনালদো নেমেছিলেন নিজেদের মাঠে সর্বশেষ দুই ম্যাচে হ্যাটট্রিকের রঙিন স্মৃতি নিয়ে। কিন্তু আজ নিজেদের মাঠে প্রথমার্ধে তাঁর দল এবং তিনি ছিলেন খুবই ম্লান। প্রথমার্ধে ইউনাইটেডের রক্ষণে একের পর এক আক্রমণ করে গেছে চেলসি। আর সেই আক্রমণ ঠেকাতে ম্যাটাডোর হয়ে ইউনাইটেডের গোলপোস্টের নিচে দাঁড়িয়ে গিয়েছিলেন স্পেনের গোলকিপার দাভিদ দি হেয়া।

প্রথমার্ধে ইউনাইটেডের গোল লক্ষ্য করে ১০টি শট নেয় চেলসি। যার মধ্যে ৬টিই লক্ষ্যে ছিল। কিন্তু একটি শটেও গোল পায়নি তারা। এর কৃতিত্ব দিতে হবে দি হেয়াকেই। কাই হাভার্টজ তো হ্যাটট্রিকও পেতে পারতেন। কিন্তু তাঁকে রুখে দেন দি হেয়া।

default-image

প্রথমার্ধের আক্রমণের ধারাবাহিকতা দ্বিতীয়ার্ধেও ধরে রাখে চেলসি। এর ফলও তারা পেয়ে যায় ৫৯ মিনিটে। রিস জিমসের ক্রসে অসাধারণ এক ফ্লিকে আলোনসোকে বল দেন হাভার্টজ। সেই বলে দুর্দান্ত এক ভলিতে দি হেয়াকে পরাস্ত করেন আলোনসো। কিন্তু এগিয়ে যাওয়ার আনন্দ বেশিক্ষণ থাকেনি চেলসির। ২ মিনিট পর গোল শোধ করে ইউনাইটেড।

দলের প্রয়োজনে আরও একবার নিজের আসল রূপে আবির্ভূত হন রোনালদো। মাতিচের ভালো একটি ক্রস চেলসির ডিফেন্ডারদের ওপর দিয়ে ভেসে এসে রোনালদোর দিকে। অসাধারণ প্রথম স্পর্শে বল নিজের নিয়ন্ত্রণে নেন রোনালদো। এরপর নিখুঁত ফিনিশিংয়ে সমতায় ফেরান ইউনাইটেডকে।

এরপর দুই দলই অনেক চেষ্টা করেও আর কোনো গোল করতে পারেনি।

ফুটবল থেকে আরও পড়ুন
মন্তব্য করুন