বিজ্ঞাপন
বিজ্ঞাপন
default-image

এই গারনাচোর সাতকপাল এই কারণে যে সৌভাগ্যবান খেলোয়াড়দের ছোট্ট একটা তালিকায় কিছুদিনের মধ্যেই ঢুকে যেতে পারে সে। বিশ্বে মেরেকেটে ২১ জন খেলোয়াড়ের সৌভাগ্য হয়েছে মেসি ও রোনালদো, দুজনেরই সতীর্থ হওয়ার। কিছুদিনের মধ্যে হয়তো গারনাচোর নামও সে তালিকায় উঠবে। আপাতত দুই আইডলের সঙ্গে ক্লাব ও জাতীয় দলের হয়ে অনুশীলন করেই আশ মেটাতে হচ্ছে এই কিশোরকে। মেসির চেয়ে রোনালদোর সঙ্গে অনুশীলনটা বেশি হচ্ছে নিশ্চয়ই। জাতীয় দলের হয়ে কিছুদিন পর মেসির সতীর্থ হওয়ার স্বপ্নে বিভোর গারনাচো যে রোনালদোর ম্যানচেস্টার ইউনাইটেডের বয়সভিত্তিক দলেই খেলে। ক্লাবে রোনালদোর সঙ্গেও হয়তো খেলা শুরু করবে আর কিছুদিন পর।

default-image

গতকাল নরউইচ সিটির বিপক্ষে দুর্দান্ত এক হ্যাটট্রিক করে ম্যানচেস্টার ইউনাইটেডকে জিতিয়েছেন রোনালদো। যে বলে খেলে এসেছে এই হ্যাটট্রিক, ম্যাচ শেষে বলটা গারনাচোর হাতে তুলে দিয়েছেন রোনালদো। যে রোনালদোর খেলা দেখে বড় হয়েছেন, সে রোনালদোই ম্যাচ বল তুলে দিচ্ছেন হাতে, নিশ্চিতভাবেই আপ্লুত হয়ে গিয়েছিল গারনাচো। মহামূল্যবান ছবিটা পোস্ট করেছে নিজের ইনস্টাগ্রাম অ্যাকাউন্টে। সঙ্গে ক্যাপশনে লিখেছে, ‘সর্বকালের সেরা (ক্রিস্টিয়ানো রোনালদো)’।

যে ছেলে আর কিছুদিন পর নিজেদের জাতীয় দলের হয়ে খেলবে, সে ছেলের মুখে রোনালদো-স্তুতি! মানতে পারেননি আর্জেন্টাইন ভক্তরা। শুধু তা–ই নয়, গারনাচোর এই ক্যাপশন দেখে মজা করার লোভ সামলাতে পারেননি আর্জেন্টিনা, ম্যানচেস্টার সিটি ও বার্সেলোনার সাবেক স্ট্রাইকার সের্হিও আগুয়েরোও। গারনাচোর পোস্টে মন্তব্য করেছেন, ‘কারণ তুমি এখনো সবার সেরা লিওনেল মেসির সঙ্গে খেলোনি!’

ফুটবল থেকে আরও পড়ুন
মন্তব্য করুন
বিজ্ঞাপন
বিজ্ঞাপন