শেষ মুহূর্তে হোসে লুইস গায়ার গোলে হার এড়ানো। স্পেনের উল্লাসটা তাই হলো বাঁধভাঙাই।
শেষ মুহূর্তে হোসে লুইস গায়ার গোলে হার এড়ানো। স্পেনের উল্লাসটা তাই হলো বাঁধভাঙাই।ছবি: এএফপি

করোনা বিরতির পর লিগ ফুটবল শুরু হয়েছে আগেই। ছিল আন্তর্জাতিক ফুটবলের অপেক্ষা। সে অপেক্ষাটাও ফুরাল। উয়েফা নেশনস লিগের গ্রুপ ফোরের প্রথম ম্যাচের মাধ্যমে আবারও পর্দা উঠেছে আন্তর্জাতিক ফুটবলের। আর তাতে শেষ মুহূর্তের গোলে জার্মানির সঙ্গে ১-১ গোলে ড্র করেছে স্পেন। এত দিন পর ফুটবলপ্রেমীদের আন্তর্জাতিক ম্যাচের অভিজ্ঞতা তাই একদম ম্যাড়মেড়ে হয়নি।

default-image
বিজ্ঞাপন

জার্মানির স্টুটগার্টে প্রথমে এগিয়ে গিয়েছিল স্বাগতিকেরা। সদ্যই আরবি লাইপজিগ থেকে চেলসিতে যোগ দেওয়া স্ট্রাইকার টিমো ভেরনারের গোলে এগিয়ে গিয়েছিল জার্মানি। গোলে সহায়তা করেছেন আটালান্টার লেফটব্যাক রবিন গসেনস। তাঁর কাছ থেকে বাম প্রান্ত থেকে বল নিয়ে রামোস-পাও তোরেসদের কাটিয়ে নিচু শটে গোল করেন ভেরনার। স্পেনের গোলরক্ষক ডেভিড ডি গিয়া প্রথমার্ধে বেশ কিছু দুর্দান্ত সেভ করে স্পেনকে ম্যাচে রেখেছিলেন। কিন্তু দ্বিতীয়ার্ধে আর পারেননি। ভেরনারের গোলটা এসেছে ৫১ মিনিটে। ওদিকে জার্মানির হয়ে মাঠে নামা সাবেক পিএসজি গোলরক্ষক কেভিন ট্র্যাপও কার্যকরী খেলা খেলেছেন। ওদিকে স্পেনের হতাশা বাড়িয়ে বেশ কয়বার সহজ সুযোগ নষ্ট করেছেন সদ্যই ভ্যালেন্সিয়া থেকে লিডস ইউনাইটেডে যোগ দেওয়া স্ট্রাইকার রদ্রিগো মোরেনো।

default-image

পরে ম্যাচের নির্ধারিত সময় পার হওয়ার পর যোগ করা সময়ের পঞ্চম মিনিটে ভ্যালেন্সিয়ার লেফটব্যাক হোসে লুইস গায়া গোল করে নেশনস লিগের প্রথম ম্যাচে দলের হার এড়ান।

৩-৫-২ ছকে খেলা জার্মানি তেমন দৃষ্টিনন্দন ফুটবল খেলেনি। সমর্থকদের হতাশই করেছে জোয়াকিম লো'র দল। শেষ মুহূর্তে গোল করা নয়, বরং গোল আটকানোর দিকেই যেন লোয়ের নজর ছিল বেশি। ম্যাচ শুরু করা এমরে চ্যান, নিকলাস সুলা, আন্তোনিও রুডিগার, রবিন গসেনস ও থিলো কেহরারের সঙ্গে শেষ মুহূর্তে লো নামিয়ে দেন রবিন কচ, ম্যাথিয়াস জিন্টারদের মতো ডিফেন্ডারদের। মাঠ থেকে তুলে নেন টিমো ভেরনার, লিরয় সানের মতো আক্রমণাত্মক খেলোয়াড়দের। তাও শেষ মুহূর্তে দলের গোল খাওয়া আটকাতে পারেননি লো।

default-image
বিজ্ঞাপন

ওদিকে দ্বিতীয়ার্ধে লো-এর বিপরীত পথে হাঁটেন স্পেনের কোচ লুইস এনরিকে। দ্বিতীয় দফায় স্পেনের কোচ হওয়ার পর যিনি এই প্রথম ছিলেন ডাগআউটে। বার্সার তরুণ উইঙ্গার আনসু ফাতিকে অভিষিক্ত করেছেন এই ম্যাচে। অভিষেকটা হয়তো ফাতি রাঙাতে পারতেন গোল করে। আর তাহলে ড্র নয়, হেরেই মাঠ ছাড়ত হয়তো জার্মানি। ৯০ মিনিটে ফাতি হেড করে বল জড়িয়েছিলেন জালে, তবে সার্জিও রামোস তার আগেই ফাউল করে বসেছিলেন জার্মান ডিফেন্ডার ম্যাথিয়াস জিন্টারকে। যদিও রেফারির সিদ্ধান্তটা অনেকের কাছেই প্রশ্নবিদ্ধ ঠেকেছে।

রদ্রিগোর হেড থেকে গোলের সামনে বল পেয়েছিলেন গায়া। এরপর স্পেনের জার্সিতে নিজের প্রথম গোল তুলে নেন এই লেফটব্যাক। ফলে একদম শেষ মুহূর্তে নির্ধারিত হয়েছে ম্যাচের ভাগ্য।

default-image

গ্রুপে নিজেদের দ্বিতীয় ম্যাচে ইউক্রেনের মুখোমুখি হবে স্পেন, আগামী ৭ তারিখে। একই দিনে সুইজারল্যান্ডের বিপক্ষে খেলবে জার্মানি। গ্রুপের অন্য ম্যাচে আন্দ্রে শেভচেঙ্কোর ইউক্রেন ২-১ গোলে হারিয়েছে সুইজারল্যান্ড। দলের হয়ে গোল করেছেন ওয়েস্ট হ্যামের উইঙ্গার আন্দ্রিই ইয়ারমোলেঙ্কো ও ম্যানচেস্টার সিটির ওলেকসান্দার জিনচেঙ্কো। সুইজারল্যান্ডের হয়ে গোল করেছেন বেনফিকার অভিজ্ঞ স্ট্রাইকার হারিস সেফেরোভিচ। এ ছাড়া গ্রুপ ৩ এর ম্যাচে স্ট্রাইকার আর্তেম জিউবার জোড়া গোলে সার্বিয়াকে ৩-১ গোলে হারিয়েছে রাশিয়া। তরুণ প্রতিভাবান উইঙ্গার ডমিনিক জবোস্লাইয়ের গোলে তুরস্ককে তাদের মাটিতে ১-০ গোলে হারিয়েছে হাঙ্গেরি। আয়ারল্যান্ডের সঙ্গে ১-১ গোলে ড্র করেছে বুলগেরিয়া। ফিনল্যান্ডকে ১-০ গোলে হারিয়েছে গ্যারেথ বেলের ওয়েলস।

ফুটবল থেকে আরও পড়ুন
মন্তব্য করুন