দুরন্ত ফর্মে আছেন হরলান্ড।
দুরন্ত ফর্মে আছেন হরলান্ড। ছবি : রয়টার্স

বার্সেলোনার বর্তমান কর্তাব্যক্তিরা খুব সম্ভবত এ মুহূর্তে ফুটবল দুনিয়ায় সবচেয়ে বেশি সমালোচিত। বিতর্কিত সব কর্মকাণ্ড তো আছেই, বিভিন্ন ভুল সিদ্ধান্ত নিয়েও সমর্থক ও ফুটবলপ্রেমীদের ক্ষোভের কারণ হয়েছেন তারা। লিওনেল মেসি থেকে শুরু করে বার্সেলোনার প্রায় সব খেলোয়াড়ই ক্লাব-কর্তাদের ওপর বীতশ্রদ্ধ। মেসি তো সভাপতি বার্তোমেউয়ের কারণে বার্সেলোনা প্রায় ছেড়েই দিয়েছিলেন। বার্সেলোনা-কর্তাদের নিয়ে নিয়ে এবার নিজের ক্ষোভের কথা বললেন বার্সার সাবেক আন্তর্জাতিক ফুটবল পরামর্শক ও ক্রীড়া পরিচালক আরিয়েদো ব্রাইদা। জানালেন, দলবদল সংক্রান্ত বিষয়ে পরামর্শ দেওয়ার জন্য আনা হলেও, নিজের মতো কাজ করতে দেওয়া হয়নি তাঁকে।

ব্রাইদা জানিয়েছেন, বেশ কিছু তরুণ তারকাকে বার্সায় আনার জন্য পরামর্শ দিলেও বার্তোমেউরা কানেই তোলেননি সেসব কথা। এদের মধ্যে রয়েছেন বরুসিয়া ডর্টমুন্ডের তরুণ স্ট্রাইকার আর্লিং ব্রট হরলান্ড। স্প্যানিশ সংবাদমাধ্যম মার্কাকে দেওয়া এক সাক্ষাৎকারে ব্রাইদা বলেছেন, তাঁকে তাঁর মতো কাজ করতে দেওয়া হয়নি, ‘তাঁরা আমাকে আমার কাজ করতে দেয়নি। আমি বেশ কিছু তরুণ খেলোয়াড়দের খুঁজে বের করেছিলাম। আর্লিং ব্রট হরলান্ড যখন নরওয়েতে খেলত, তখনই আমি বার্সাকে বলেছিলাম ওকে কেনার জন্য। কিন্তু ক্লাব আমাকে মানা করে দিয়েছিল। তাঁরা বলেছিল, বার্সায় খেলার মতো যোগ্যতা হরলান্ডের নেই। আমি ইতালির বেশ কয়েকজন খেলোয়াড়ের ব্যাপারে পরামর্শ দিয়েছিলাম বার্সেলোনাকে। যেমন নিকোলো জানিওলো (এখন রোমায় খেলেন), কিংবা নিকোলো বারেল্লা (এখন ইন্টার মিলানে খেলেন)। কিন্তু আপনাকে যদি নিজের কাজটা ঠিকঠাক করতে দেওয়া না হয়, কোনো লাভ নেই। আমাকে একদম একঘরে করে রাখা হয়েছিল।’

default-image
বিজ্ঞাপন

আরিয়েদো ব্রাইদা নিজেও নিজের কর্মক্ষেত্রে কিংবদন্তি। এসি মিলানের মহাব্যবস্থাপক ও ক্রীড়া পরিচালক হিসেবে প্রায় সাতাশ বছর দায়িত্ব পালন করেছেন, তাঁর সময়েই মিলান কাটিয়েছে স্বর্ণসময়। কাকা, ক্লারেন্স সিডর্ফ, রুড খুলিত, মার্কো ফন বাস্তেন, ফ্রাঙ্ক রাইকার্ড, দিদা, আন্দ্রিই শেভচেঙ্কো, জর্জ উইয়াহ, কাফু, জভোনিমির বোবান, দেয়ান সাভিসেভিচ, মার্সেল দেশাই, অলিভার বিয়েরহফ, থিয়াগো সিলভা, আলেক্সান্ডার পাতো, রুই কস্তার মতো দুর্দান্ত বিদেশি খেলোয়াড়দের এই ব্রাইদাই এনেছিলেন মিলানে।

হরলান্ড গত দেড় মৌসুম ধরে দুর্দান্ত ফর্মে আছেন। বিশ্বে যেসব তরুণ স্ট্রাইকারদের এখন সবচেয়ে ভালো মনে করা হয়, হরলান্ডের নাম সে তালিকায় একদম ওপরের দিকেই থাকে। রেড বুল সালজবুর্গের হয়ে গোলের বন্যা বইয়ে দেওয়ার পর এই জানুয়ারিতেই যোগ দিয়েছেন বরুসিয়া ডর্টমুন্ডে। সেখানেও চলছে তাঁর গোল-উৎসব। ডর্টমুন্ডে থাকলেও সামনের যেকোনো মৌসুমে যোগ দিতে পারেন রিয়াল মাদ্রিদ, বায়ার্ন মিউনিখ কিংবা জুভেন্টাসের মতো বড় কোনো ক্লাবে।

হরলান্ডের এমন দুরন্ত ফর্ম দেখে এখন হয়তো বার্সার কর্তাব্যক্তিদের নিশ্চয়ই মনে হয় ব্রাইদার কথা শুনলেই লাভ হতো হয়তো!

মন্তব্য পড়ুন 0