default-image

ম্যাচের শুরু থেকেই দাপট ছিল ইউনাইটেডের। গত কয়েক দিনে কোচ রালফ রাংনিক দলে একটা পরিবর্তন এনেছেন। একসময় মনে হয়েছিল পল পগবার ইউনাইটেড পর্ব শেষ হয়ে গেছে। সেই পগবা একাদশে ফিরেছেন এই মাসে। গতকালও রাংনিক বলছিলেন মানসিকভাবে পুরোপুরি প্রস্তুত নন পগবা। কিন্তু আজও মূল একাদশে ছিলেন পগবা। ফ্রেদ, মাতিচের সঙ্গে পগবা ও ব্রুনো ফার্নান্দেজকে একাদশে রাখায় মূল একাদশে ফরোয়ার্ড বলতে শুধু ক্রিস্টিয়ানো রোনালদো ছিলেন। আর তাঁর সঙ্গী গত কয়েক ম্যাচে দারুণ ফর্মে থাকা অ্যান্থনি এলাঙ্গা। মার্কাস রাশফোর্ড কিংবা অবশেষে ইউনাইটেডে ফর্ম খুঁজে পাওয়া জাডোন সাঞ্চোর জায়গা হয়েছে বেঞ্চে।

default-image

রোনালদো বহুদিন ধরেই আর নিজের পরিচিত বাঁ উইংয়ে থাকেন না। আজ তো তাঁকে ডান প্রান্তেই দেখা গেছে বেশি। রোনালদোকে ডানে ডিফেন্ডার টেনে নিয়ে বক্সের সামনে সতীর্থের জন্য জায়গা বের করে দিতে দেখা গেছে বেশ কয়েকবার। কিন্তু কখনো ফার্নান্দেজ, কখনো মাতিচরা সে সুযোগগুলো কাজে লাগাতে পারেননি।

অবশ্য রোনালদো নিজেও সুযোগ নষ্ট করায় কম যাননি। পায়ে আগের সে গতি নেই, ড্রিবলিং দক্ষতাও কমে এসেছে। আজ তো বেশ কবার ড্রিবলিং করতে গিয়ে বল হারিয়েছেন বক্সের আশপাশে। সে সঙ্গে গোলের সুযোগ নষ্ট করা তো ছিলই, ফলে ম্যাচের বড় একটা অংশ বল দখলে রেখে এবং প্রতিপক্ষের চেয়ে দ্বিগুণ পাস দিয়েও ম্যাচের ফলে কোনো পরিবর্তন আনতে পারেননি রোনালদোরা।

default-image

২২টি শট নিলেও গোলরক্ষকের পরীক্ষা মাত্র তিনবার নিতে পেরেছে ইউনাইটেড। তবে সমালোচকেরা সেই তিনবারকেও পরীক্ষা বলতে আপত্তি জানাতে চাইবেন।

ইংলিশ প্রিমিয়ার লিগে রোনালদোর দীর্ঘ গোল খরা চলছে, এটা বলার উপায় নেই। ১৫ ফেব্রুয়ারি ব্রাইটনের বিপক্ষেই গোল পেয়েছেন। লিগে ইউনাইটেডের সর্বোচ্চ গোলদাতাও রোনালদো (৯)। কিন্তু এর মাত্র একটি এসেছে গত ৮ ম্যাচে। মৌসুমের গুরুত্বপূর্ণ সময়ে ইউনাইটেডের দুশ্চিন্তা বাড়াচ্ছে এ তথ্য।

ফুটবল থেকে আরও পড়ুন
মন্তব্য করুন