default-image
>টানা পাঁচ বিশ্বকাপে গোল করার রেকর্ড গড়েছেন ব্রাজিল নারী দলের ফুটবলার মার্তা। এর আগে টানা চার বিশ্বকাপে গোল করার রেকর্ড ছিল ব্রাজিলের কালো মানিক পেলে, পর্তুগালের ক্রিস্টিয়ানো রোনালদো, জার্মানির মিরোস্লাভ ক্লোসা ও উইয়ে সিলারের।

খোদ পেলে নাম দিয়েছেন ‘স্কার্ট-পরা পেলে’। মানে মার্তা ভিয়েরার মেয়েদের ফুটবলের পেলে। কিন্তু মার্তা তো স্বদেশি কালো মানিক পেলেকেও হার মানিয়ে দিয়েছেন। টানা পাঁচ বিশ্বকাপে গোল করার রেকর্ড গড়েছেন মার্তা। যে কীর্তি পেলে কেন কোনো পুরুষ ফুটবলারেরও নেই।

মার্তা ছাড়া নেই কোনো নারী ফুটবলারেরও এ রেকর্ড নেই। টানা পাঁচ বিশ্বকাপে গোল করার কীর্তির কথা ছাড়ুন! টানা চার বিশ্বকাপে গোল করার কীর্তি আছে কেবল পেলে, ক্রিস্টিয়ানো রোনালদো, মিরোস্লাভ ক্লোসা ও উইয়ে সিলার।

ফ্রান্সে শুরু হয়েছে নারী ফুটবল বিশ্বকাপ। গতকাল গ্রুপ পর্বের ম্যাচে অস্ট্রেলিয়ার বিপক্ষে পেনাল্টি থেকে গোল করে রেকর্ডটি নিজের করে নিয়েছেন বিশ্ব নারী ফুটবলের ব্রাজিলিয়ান পোস্টার গার্ল। শুধু টানা পাঁচ বিশ্বকাপে গোল করার রেকর্ডই নয়, ভাগ বসিয়েছেন পুরুষ বিশ্বকাপে সর্বোচ্চ গোল করা জার্মানির ক্লোসার ১৬ গোলের রেকর্ডেও। ফলে এখন থেকে বিশ্বকাপের গোলের রেকর্ডের প্রসঙ্গ উঠলে জার্মান ক্লোজার সঙ্গে উঠবে ব্রাজিলের মার্তার নামও। কিন্তু দুর্ভাগ্যের বিষয় এমন রেকর্ডময় দিনে অস্ট্রেলিয়ার কাছে ৩-২ গোলে হেরে গিয়েছে ব্রাজিল।

মার্তার বিশ্বকাপে অভিষেক ২০০৩ সালে। অভিষেক বিশ্বকাপেই গোল করেছিলেন তিনটি। চার বছর পরের বিশ্বকাপে গোল বেড়েছে ৪টি। অর্থাৎ ২০০৭ বিশ্বকাপে মার্তার গোলসংখ্যা ছিল ৭। ২০১১ বিশ্বকাপে ৪, ২০১৫ বিশ্বকাপে ১ ও এবারের বিশ্বকাপে এখন পর্যন্ত ১টি। ফ্রান্স বিশ্বকাপের কেবল গ্রুপ পর্বের দুই ম্যাচ শেষ হয়েছে। মার্তার যে দাপট চলছে, তাতে ক্লোসার রেকর্ডটা এককভাবে করে নেওয়াটা তাঁর জন্য কেবল সময়ের অপেক্ষা।

৩৩ বছর বয়সী মার্তার রেকর্ড আছে আরও একটি। মেসি-রোনালদো যেখানে পাঁচবার ফিফা বর্ষসেরা খেলোয়াড়ের খেতাব জিতেছেন, সেখানে মার্তা জিতেছে ছয়টি। কিন্তু ব্রাজিলিয়ান এই জীবন্ত কিংবদন্তি এখনো পর্যন্ত বিশ্বকাপ ছুঁতে পারেননি। এত সমৃদ্ধ ক্যারিয়ার, অথচ সব হয়ে যাচ্ছে অর্থহীন। জাতীয় দলের হয়ে যে জিততে পারলেন না কিছুই! দেখা যাক ফ্রান্সে মার্তার সে বিশ্বকাপ জয়ের তৃষ্ণাটা পূরণ হয় কিনা!

বিজ্ঞাপন
মন্তব্য করুন