রোববার ম্যান সিটির বিপক্ষে ঘরের মাঠ অ্যানফিল্ডে দারুণ এক জয় পেয়েছে লিভারপুল। ম্যাচের পুরোটা সময় দুই দলের আগ্রাসী ফুটবল উত্তেজনা ছড়িয়েছে। ম্যাচের শেষ দিকে সহকারী রেফারি গ্যারি বেসউইকের ওপর ক্ষোভ দেখিয়ে সরাসরি মার্চিং অর্ডার পেয়ে ডাগআউট ছাড়তে হয় ক্লপকে।

ম্যাচে আক্রমণে যাওয়ার সময় মোহাম্মদ সালাহকে ফেলে দেন সিটি তারকা বের্নার্দো সিলভা। সিলভার বিরুদ্ধে ফাউলের আবেদন করে ব্যর্থ হন সালাহ। আর এ ঘটনায় ডাগআউটে মেজাজ হারান ক্লপও।

ছুটে গিয়ে রেফারির ওপর ক্ষোভও প্রকাশ করতে দেখা যায় তাঁকে। যে কারণে ক্লপকে লাল কার্ড দেখান রেফারি অ্যান্থনি টেইলর।

পরে অবশ্য নিজের আচরণের জন্য ক্ষমা চেয়েছেন ক্লপ। এমনকি ম্যাচের পর রেফারি টেইলরের সঙ্গে কথা বলেছেন বলেও জানিয়েছেন এই জার্মান কোচ, ‘নিজের প্রতিক্রিয়া নিয়ে আমি খুশি নই। তবে যা ঘটেছে সবাই সেটা দেখেছে। ম্যাচের পর আমি অ্যান্থনি টেইলরের সঙ্গে অফিসে বসেছি। তার সঙ্গে শান্তভাবে বসে গোটা পরিস্থিতি নিয়ে আলাপ করেছি।’

এ ঘটনায় শুক্রবারের মধ্যে এফএ-এর অভিযোগের উত্তর দিতে হবে ক্লপকে। তার আগে আজ রাতে অ্যানফিল্ডে ওয়েস্ট হামের বিপক্ষে ডাগআউটে থাকার সুযোগ পাবেন ক্লপ। তবে ক্লপের ডাগআউটে থাকার সিদ্ধান্ত মানতে পারছেন না সাটন।

তিনি বলেছেন, ‘ক্লপ স্বীকার করেছে যে সে ভুল করেছে। সেটাই সে করতে পারে। তবে আমরা যদি ম্যানেজারদের এমন আচরণ বন্ধ করতে চাই, তবে এফএকে এটা নিশ্চিত করতে হবে যে শাস্তিগুলো যথেষ্ট প্রতিরোধক (হচ্ছে)।’

আজ রাতে ওয়েস্ট হাম ম্যাচে ক্লপের ডাগআউটে থাকার বিরোধিতা করে সাটন আরও বলেছেন, ‘ক্লপ ওয়েস্ট হামের বিপক্ষে ম্যাচে ডাগআউটে থাকবে। এটা ঠিক না। যদি এমন আচরণ বন্ধ করতে হয়, তবে তাৎক্ষণিকভাবে নিষেধাজ্ঞা জারি করতে হবে। তাদের ৩ ম্যাচ, ৬ ম্যাচ, এমনকি ১০ ম্যাচও বাইরে রাখা যেতে পারে।’