তিনি বলেছেন, ‘সবচেয়ে গুরুত্বপূর্ণ ব্যাপার হচ্ছে, আমরা জানি যে বিশ্বকাপে একটি ভুল বা আত্মঘাতী সিদ্ধান্ত কিংবা অপ্রত্যাশিতভাবে এমন কিছু ঘটতে পারে, যা আপনাকে ছিটকে দিতে পারে। এমন অনেক উদাহরণ আছে। যেমন ২০০২ সালের আর্জেন্টিনা দল যেভাবে ছিটকে গিয়েছিল, এমন কিছু তাদের প্রাপ্য ছিল না। এটা হয়েছিল ইংল্যান্ডের বিপক্ষে একটি অন্যায্য পেনাল্টির কারণে, যেটি আসলে পেনাল্টি ছিলই না। এসব বিষয়কে তাই বিবেচনায় নিতে হবে। কখনো কখনো বিশ্বকাপ খুবই নিষ্ঠুর এবং খুবই অন্যায্য। অনেক সময় এমন দল ফাইনালে পৌঁছে যায়, যারা বাকিদের ওপর আধিপত্যই করতে পারেনি।’

তবে এই অনিশ্চয়তাকে সঙ্গী করেই বিশ্বকাপকে উপভোগ করতে হবে বলে মন্তব্য করেছেন স্কালোনি, ‘আমি যা বলছিলাম, বিশ্বকাপ খুবই নিষ্ঠুর। কারণ, যা আমি বলেছিলাম, এটা আপনাকে ভুল করার সুযোগ দেয় না যা কিনা বিশ্ব ফুটবলে হতেই পারে। তারপরও আমি মনে করি, এটা যা নিয়ে আসে, সব আপনাকে আনন্দের সঙ্গে উপভোগ করার চেষ্টা করতে হবে। আশা করি, আমাদের জন্য ভালো কিছুই হবে।’

বিশ্বকাপের বেশ কিছু দিন আগে থেকে কারা ফেবারিট, তা নিয়ে অনেক কথা শোনা যায়। স্কালোনি অবশ্য কাউকে ফেবারিট বলতে নারাজ। তিনি বলেছেন, ‘ফেবারিট নিয়ে বলতে হলে, এটা বলার সাহস নেই যে বিশ্বকাপে কোনো ফেবারিট আছে। এটা অসম্ভব। দারুণ কিছু দল আছে, যাদের অনেকের একে অপরের সঙ্গে দ্বিতীয় রাউন্ডে দেখা হয়ে যেতে পারে এবং সেখানেই যাত্রা শেষ হয়ে যেতে পারে। তাই এটা বলা কঠিন যে কে বিশ্বকাপ জিতবে।’