দক্ষিণ এশিয়ার ফুটবলে মেয়েদের শ্রেষ্ঠত্বের স্বীকৃতি হিসেবে আজ বাংলাদেশ দলকে সংবর্ধনা দিয়েছেন প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা। সংবর্ধনার পাশাপাশি বাংলাদেশ দলের ২৩ জন ফুটবলারের প্রত্যেককে ৫ লাখ করে টাকা দিয়েছেন প্রধানমন্ত্রী। কোচ ও কর্মকর্তারা পেয়েছেন দুই লাখ করে।

প্রধানমন্ত্রীর কাছ থেকে সংবর্ধনা পেয়ে উচ্ছ্বসিত সাবিনা বলছিলেন, ‘এটা আমার জন্য স্মরণীয় দিন। খেলাপাগল প্রধানমন্ত্রী এর আগেও অনেকবার আমাদের সংবর্ধনা দিয়েছেন। সর্বশেষ যেবার প্রধানমন্ত্রীর কাছে গিয়েছিলাম, ওই দলে আমি সহকারী কোচ হিসেবে ছিলাম। কিন্তু এবারই প্রথম খেলোয়াড় হিসেবে গেলাম এবং আমার হাতে ছিল চ্যাম্পিয়ন ট্রফি। তা ছাড়া আমি দলের অধিনায়ক। তাই এবারের অনুভূতি সত্যি আমার কাছে অন্য রকম।’

সংবর্ধনা অনুষ্ঠানে সাফের ট্রফিটি প্রধানমন্ত্রীর হাতে তুলে দেন সাবিনা। অধিনায়ক হিসেবে প্রধানমন্ত্রীর হাতে আরও অনেক ট্রফি তুলে দিনে চান তিনি, ‘আমি যখন ওনার হাতে ট্রফিটা তুলে দিচ্ছিলাম, তখন বলেন, আরও ভালো খেলতে হবে আমাদের। আমরা যেন সব সময় এই আনন্দঘন মুহূর্ত এভাবে ধরে রাখতে পারি, সেই প্রত্যাশার কথা তিনি আমাদের বলেছেন।’

প্রধানমন্ত্রীর প্রতি কৃতজ্ঞতা জানিয়ে সাবিনা বলছিলেন, ‘আমরা প্রধানমন্ত্রীর প্রতি কৃতজ্ঞ। যখনই সাফল্য পেয়েছি, তখনই তাঁর কার্যালয়ে ডেকে আমাদের সংবর্ধনা দিয়েছেন। এবারও আমাদের সংবর্ধনা দিলেন। মেয়েরা সবাই খুবই খুশি।’

সাবিনা ছাড়াও দলের অন্য সব খেলোয়াড়ের পরিবারের খোঁজখবর নিয়েছেন প্রধানমন্ত্রী। বিশেষ করে ডিফেন্ডার মাসুরা পারভীনের সঙ্গে প্রধানমন্ত্রী আলাদাভাবে কথা বলেছেন বলে জানালেন সাবিনা, ‘সাতক্ষীরা জেলা প্রশাসকের পক্ষ থেকে দেওয়া মাসুরাদের বাড়িটি সম্প্রতি উচ্ছেদ করতে নোটিশ দিয়েছে সড়ক ও জনপথ বিভাগ। এই সমস্যার কথা মাসুরা প্রধানমন্ত্রীকে আজ জানিয়েছে।’

সংবর্ধনা অনুষ্ঠানে উপস্থিত ছিলেন যুব ও ক্রীড়া প্রতিমন্ত্রী জাহিদ আহসান, বাংলাদেশ ফুটবল ফেডারেশনের সভাপতি কাজী সালাউদ্দিন ও বাফুফের মহিলা কমিটির চেয়ারম্যান মাহফুজা আক্তার।