কাসেলের নিজস্ব বড় মাঠ নেই। ম্যাচ আয়োজন করা হয় লিগ ওয়ানের ক্লাব লাসের বোলায়ের্ট-দেলেলিস স্টেডিয়ামে। পিএসজি কোচ লিওনেল মেসিকে বিশ্রামে রেখে প্রায় পুরো শক্তির দল মাঠে নামিয়ে দেন। তবে পুঁচকে কাসেলের বিপক্ষে প্রথম গোল পেতে প্রায় আধা ঘণ্টা অপেক্ষা করতে হয়েছে। এর আগে ট্যাকল করে হলুদ কার্ডও দেখে ফেলেন নেইমার।

২৯তম মিনিটে পিএসজিকে প্রথম গোলটি এনে দেন এমবাপ্পে। নুনো মেন্ডেজের ক্রস থেকে পাওয়া বল সহজেই জালে জড়িয়ে দেন। চার মিনিট বাদেই ব্যবধান দ্বিগুণ করেন নেইমার। পরপর ২ গোল হজমের পর রক্ষণে এলোমেলো হয়ে পড়ে কাসেল। ৩৪ ও ৪০তম মিনিটে আরও ২ গোল করে হ্যাটট্রিক পূর্ণ করেন এমবাপ্পে।

এ নিয়ে দুই মাসে দুটি হ্যাটট্রিক করলেন ২৪ বছর বয়সী এই ফরাসি স্ট্রাইকার। আগের হ্যাটট্রিকটি করেছেন বিশ্বকাপ ফাইনালে আর্জেন্টিনার বিপক্ষে।

প্রথমার্ধে ৪-০ ব্যবধানে এগিয়ে যাওয়ার পর দ্বিতীয়ার্ধেও আক্রমণের ধার কমায়নি পিএসজি। ৫৬ ও ৭৯তম মিনিটে আরও ২ গোল করে রেকর্ড বইয়ে নাম লেখান এমবাপ্পে। পিএসজির ইতিহাসে এই প্রথম কেউ ৫ গোল করলেন।

এক ম্যাচে ৫ গোল করে পিএসজি ইতিহাসে আরও একটি জায়গায়ও এগিয়ে গেছেন এমবাপ্পে। প্যারিসের ক্লাবটির হয়ে সবচেয়ে বেশি ২০০ গোল করেছেন এদিনসন কাভানি। উরুগুইয়ান ফরোয়ার্ডকে ছুঁতে আর মাত্র ৪ গোল দরকার ফরাসি তারকার।

দ্বিতীয়ার্ধে এমবাপ্পের ২ গোলের মাঝে ৬০তম মিনিটে আরেকটি গোল করেন স্প্যানিশ মিডফিল্ডার কার্লোস সোলের।

বড় জয়ের পর অবশ্য কোয়ার্টারে ওঠার লড়াইয়ে সহজ প্রতিপক্ষ পাচ্ছে না পিএসজি। শেষ ষোলোয় এমবাপ্পেদের প্রতিপক্ষ অলিম্পিক মার্শেই।