শুধু রিয়াল-লিভারপুল ম্যাচেই নয়, রোমাঞ্চের দেখা মিলবে পিএসজি-বায়ার্ন মিউনিখ ম্যাচেও। গ্রুপপর্বে বেনফিকার সঙ্গে পিএসজির ম্যাচ, জয়, ড্র, হার, পয়েন্ট, নিজেদের গোল, অ্যাওয়ে গোল সবকিছুই সমান হয়ে গিয়েছিল।

পরবর্তীতে অ্যাওয়ে গোলে পিছিয়ে পড়ে গ্রুপ রানার্সআপ হতে হয়েছিল পিএসজিকে। গ্রুপ রানার্সআপ হওয়ার পর হতাশার কথাও বলেছিলেন দলের তারকা খেলোয়াড় কিলিয়ান এমবাপ্পে।

পাশাপাশি অবশ্য বড় দলকে হারিয়েই যে শিরোপা জিততে হবে সেটিও মনে করিয়ে দিয়েছিলেন এই ফরাসি তারকা। এমবাপ্পের এই মন্তব্য বৃথা যায়নি। সাবেক চ্যাম্পিয়ন ও বার্সেলোনার বিদায়ের নেপথ্যে থাকা বায়ার্ন মিউনিখকেই শেষ ষোলোতে সামনে পেলেন মেসি-নেইমার-এমবাপ্পেরা।

২০২০ সালে বায়ার্নের কাছেই ফাইনালে হেরেছিল পিএসজি। তাই লিভারপুলের মতো পিএসজির জন্যও এটি প্রতিশোধের ম্যাচ।

এই দুটি বড় লড়াইয়ের কারণে অন্য লড়াইগুলো কিছুটা আড়ালে পড়েছে। তবে সেই ম্যাচগুলোতেও দেখা মিলতে উত্তাপের। এসি মিলান-টটেনহাম, বরুসিয়া ডর্টমুন্ড-চেলসি, ফ্রাঙ্কফুর্ট-নাপোলির লড়াইয়েও কেউ কাউকে ছেড়ে কথা বলবে না।

কিছুটা অসম শক্তির হলেও আরবি লাইপজিগ চাইবে ম্যানচেস্টার সিটিকে চমকে দিয়ে নতুন ইতিহাস গড়তে। সব মিলিয়ে রোমাঞ্চে ভরপুর এক নকআউট লড়াইয়ের অপেক্ষা করতেই পারে ফুটবলপ্রেমীরা।