ফিফা গত ফেব্রুয়ারিতে নির্দেশ দিয়েছিল, এ বছর সেপ্টেম্বরে ম্যাচটি অবশ্যই পুনরায় খেলতে হবে ব্রাজিল ও আর্জেন্টিনাকে। যদিও ম্যাচের কোনো দিনক্ষণ ঠিক করেনি ফুটবলের নিয়ন্ত্রক এই সংস্থা। এর মধ্যে কাল ব্রাজিল ফুটবল কনফেডারেশন (সিবিএফ) জানিয়েছে, ২০২২ বিশ্বকাপ বাছাইপর্বে পণ্ড হওয়া সেই ম্যাচ তারা খেলতে চায় না।

২১ নভেম্বর থেকে শুরু হবে কাতার বিশ্বকাপ। সংবাদ সংস্থা এপি জানিয়েছে, ব্রাজিল কোচ তিতে বিশ্বকাপের আগে চোট ও নিষেধাজ্ঞার শঙ্কায় ম্যাচটি খেলতে আগ্রহী নন। এ ছাড়া আর্জেন্টিনা ফুটবল অ্যাসোসিয়েশনও (এএফএ) ম্যাচটি খেলতে চায় না।

default-image

সিবিএফের ওয়েবসাইটে বিবৃতিতে বলা হয়, ‘কোচ তিতে এবং সমন্বয়ক জুনিনহো পউলিস্তার অনুরোধের পরিপ্রেক্ষিতে সিবিএফ প্রেসিডেন্ট এদনালদো রদ্রিগেজ ম্যাচটি সাসপেন্ড করার চেস্টা করবেন।’ সেই ম্যাচ পণ্ড হলেও ব্রাজিল ও আর্জেন্টিনার কাতার বিশ্বকাপের চূড়ান্ত পর্বের টিকিট কাটতে কোনো সমস্যা হয়নি। বাছাইপর্বে ঝুলে থাকা এ ম্যাচ নিয়ে অন্তত বিশ্বকাপের মূল পর্বে ওঠার কোনো সমীকরণ নেই।

তবে সিবিএফের বিবৃতিতে ইঙ্গিত রয়েছে, ম্যাচটি বাতিল করতে এরই মধ্যে আর্জেন্টিনা ফুটবল অ্যাসোসিয়েশনের (এএফএ) সঙ্গে একমত হয়েছে ফিফা।

বিবৃতিতে বলা হয়, ‘সেপ্টেম্বরে ম্যাচটি না খেলা নিয়ে ফিফা ও এএফএর ঐকমত্যে পৌঁছানোর প্রস্তাব মেনে নেবে সিবিএফ।’ এদনালদো রদ্রিগেজ বলেছেন, ‘কোচিং স্টাফের অবস্থান বুঝে আমরা ফিফাকে ম্যাচটি বাতিল করার অনুরোধ করব। কাতারে ষষ্ঠ বিশ্বকাপ জয়কেই প্রাধান্য দিচ্ছি আমরা।’

default-image

ব্রাজিলের সংবাদমাধ্যম জানিয়েছে, আর্জেন্টিনার সঙ্গে পণ্ড হওয়া সেই ম্যাচ না খেলে ইউরোপে দুটি প্রীতি ম্যাচ খেলতে চায় ব্রাজিল। কাতার বিশ্বকাপে ‘জি’ গ্রুপে ব্রাজিলের প্রতিদ্বন্দ্বী সুইজারল্যান্ড, সার্বিয়া ও ক্যামেরুন। ‘সি’ গ্রুপে আর্জেন্টিনার প্রতিদ্বন্দ্বী মেক্সিকো, পোল্যান্ড ও সৌদি আরব।

ফুটবল থেকে আরও পড়ুন
মন্তব্য করুন