যোগ করা সময়ে বল টাচলাইন পার হলে থ্রো ইন পায় ওয়েলস। সময়ক্ষেপণের জন্য বলে লাথি মেরে দূরে সরিয়ে দেন বেলজিয়ান কোচ। রেফারি আলী পালাবিয়িক এসে সরাসরিই লাল কার্ড দেখান মার্তিনেজকে।

default-image

টাচলাইন থেকে ছিটকে যাওয়াটা ভালো লাগেনি বেলজিয়ান কোচের। ম্যাচ শেষে স্পষ্টই বলেছেন, ‘এটা সর্বোচ্চ হলুদ কার্ড হতে পারত। লাল কার্ড কোনোমতেই না। আমি শুধু খেলার গতি একটু ধীর করতে চেয়েছিলাম।’

তবে খারাপ লাগার ওই মুহূর্তে বেলজিয়াম অধিনায়ক এডেন হ্যাজার্ড পরিবেশকে কিছুটা হালকা করে তুলেছেন। মার্তিনেজের কণ্ঠেই শুনুন, ‘অধিনায়ক বলল, এই লাল কার্ডের জন্য তোমাকে ডিনারের খরচ বহন করতে হবে। আমিও রাজি হয়ে গেলাম।’

৩১ বছর বয়সী বেলজিয়াম অধিনায়ককে এই ম্যাচে ৬৩ মিনিট খেলিয়েছেন কোচ। চলতি মৌসুমে রিয়াল মাদ্রিদের হয়ে মাত্র একটি ম্যাচে শুরুর একাদশে খেলেছেন হ্যাজার্ড।

জাতীয় দলের হয়ে শুরুর একাদশে সুযোগ পেয়ে খুশি রিয়াল ফরোয়ার্ড, ‘বিশ্বকাপের আগে নিজেকে আরও প্রস্তুত করে নিতে চাই আমি। খেলতে নামলে নিজের সর্বোচ্চটা দিয়েই খেলি। রিয়াল মাদ্রিদে সুযোগটা পাওয়াটা সহজ নয়। আমি আরও বেশি খেলতে চাই, কিন্তু খেলতে পারছি না।’

হ্যাজার্ডের দল উয়েফা নেশনস লিগে পরের ম্যাচটি খেলবে রোববার, নেদারল্যান্ডসের বিপক্ষে।

ফুটবল থেকে আরও পড়ুন
মন্তব্য করুন