ম্যাচের আগেই ভিনিসিয়ুসের উদ্দেশ্যে তাদের বর্ণবাদী আচরণ শুরু হয়েছিল। রিয়াল মাদ্রিদ দল স্টেডিয়ামে পৌঁছানোর সঙ্গে সঙ্গে তারা মাঠের বাইরে গান গাইতে শুরু করে এই বলে, ‘ভিনিসিয়ুস, তুমি বানর’।

মাঠের ভেতরে গ্যালারিতেও ছিল একই অবস্থা। বোতলসহ নানা কিছু মাঠে গোল উদ্‌যাপন করা রদ্রিগো ও ভিনিসিয়ুসের দিকে ছুড়ে মেরেছে তারা, যে ঘটনায় ক্ষুব্ধ খোদ স্পেনের প্রধানমন্ত্রী পেদ্রো সানচেজ। উগ্র সেই সমর্থকদের বিরুদ্ধে ব্যবস্থা না নেওয়ায় ক্ষোভ ঝেড়েছেন আতলেতিকো মাদ্রিদের ওপর।

default-image

জাতিসংঘের সাধারণ সভায় যোগ দিতে গিয়ে সংবাদমাধ্যম পলিটিকোতে বলেছেন, ‘আমি আতলেতিকো মাদ্রিদের একজন সমর্থক। কিন্তু আমি খুবই হতাশ হয়েছি। ক্লাবের পক্ষ থেকে উগ্র সেসব সমর্থকের প্রতি কঠিন বার্তা আশা করেছিলাম। বর্ণবাদী আচরণকে ফুটবল ক্লাবগুলোর গুরুত্বের সঙ্গে দেখা উচিত এবং ব্যবস্থা নেওয়া উচিত।’

মাদ্রিদের মেয়র মার্টিনেজ আলমেইরাও আতলেতিকোর সমর্থক। এমন কাণ্ডের সমালোচনা করেছেন তিনিও, ‘এমন বর্ণবাদী আচরণ শুধু খেলাধুলায় নয়, জীবনের কোথাও এর জায়গা নেই। একজন মেয়র ও আতলেতিকোর সমর্থক হিসেবে বলছি, ক্লাবটির সমর্থকদের এমন কাণ্ডে আমি লজ্জিত।’

খেলা শুরুর আগে মাঠের বাইরের পরিস্থিতি দেখে আতলেতিকো কর্তৃপক্ষ সমর্থকদের উদ্দেশে একটি বিবৃতিও দিয়েছিল, ‘আপনারা ক্লাবের প্রতি ভালোবাসা ও আবেগ প্রকাশ করুন। কিন্তু একই সঙ্গে প্রতিপক্ষের প্রতি শ্রদ্ধাও দেখাতে হবে।’

সমালোচনার মুখে মঙ্গলবার উগ্র সমর্থকদের বিরুদ্ধে ব্যবস্থা নেওয়ার কথা জানায় আতলেতিকো।

বিবৃতিতে ক্লাবটির পক্ষ থেকে বলা হয়েছে, ‘এমন ঘটনায় আতলেতিকো পরিবার মর্মাহত। বর্ণবাদী আচরণের সঙ্গে জড়িত গুটিকয় সমর্থকের কারণে আমরা নিজেদের ফুটবলীয় মূল্যবোধকে প্রশ্নবিদ্ধ করতে পারি না। এসব সমর্থক ক্লাবের প্রতিনিধিত্বও করে না। এ ঘটনার সঙ্গে জড়িত সমর্থকদের নিষিদ্ধ করা হবে।’

লা লিগা কর্তৃপক্ষ স্পেন ফুটবল ফেডারেশনের শৃঙ্খলা কমিটির কাছে এরই মধ্যে অভিযোগ করেছে। এই ঘটনার তদন্তে শৃঙ্খলা কমিটিকে সহায়তা করার কথা জানিয়েছে আতলেতিকো মাদ্রিদ।

ফুটবল থেকে আরও পড়ুন
মন্তব্য করুন