জানা গেছে, ম্যাচের ১২ মিনিটের সময় হানিফ একটি কর্নার কিক নিয়ে দৌড়ে মাঝমাঠে আসতে গিয়ে মাটিতে পড়ে যান। তখনই হানিফের মুখ দিয়ে লালা বের হচ্ছিল। তাঁকে প্রায় সঙ্গে সঙ্গেই হাসপাতালে নিয়ে যাওয়া হয়। কিন্তু কর্তব্যরত চিকিৎসক জানান, হানিফ আর নেই।

হানিফ রশিদ ঢাকার শীর্ষ ফুটবল লিগে রহমতগঞ্জ, আরামবাগ ও ইয়ংমেনস ক্লাবে খেলেছেন। ঢাকার মাঠে পরিচিত এই ফুটবলার মৃত্যুর আগপর্যন্ত ঢাকা সোনালী অতীত ক্লাবের কার্যনির্বাহী কমিটির সদস্য ছিলেন।

সোনালী অতীত ক্লাবের সভাপতি হাসানুজ্জামান খান বাবলুর বিশ্বাসই হচ্ছে না তাঁদের চেনা সঙ্গী হঠাৎ চলে গেছেন পৃথিবী ছেড়ে। বাবলু বলেন, ‌‘যত দূর জেনেছি, ১২ মিনিট পর খেলা বন্ধ হয়ে যায়। ওই ম্যাচ আর হয়নি। টুর্নামেন্টে আমাদের দল খেলা বাতিল করে আগামীকাল (সোমবার) ঢাকায় ফিরে আসবে। আমরা এমন মৃত্যুতে গভীরভাবে শোকাহত।’

বাবলু যোগ করেন, ‘ডাবলু ছিল সবচেয়ে ফিট খেলোয়াড়। কোনো রকম শারীরিক সমস্যার কথা শুনিনি। শিলিগুড়িতে যাওয়ার ব্যাপারে ওরই সবচেয়ে বেশি আগ্রহ ছিল। কিন্তু কী হয়ে গেল বুঝতেই পারছি না। আজ দুপুরেই শিলিগুড়ির মাঠ থেকে ওরা ঢাকায় আমার সঙ্গে ভিডিও কলে কথা বলেছিল। সন্ধ্যায় শুনলাম এই দুর্ঘটনার কথা। বিশ্বাসই করতে পারছি না আমাদের অতি আপনজন ডাবলু নেই।’