দ্বিতীয়ার্ধের শেষ ১০ মিনিট ছাড়া  ম্যাচে লিভারপুলেরই আধিপত্য ছিল। কিন্তু ম্যাচে প্রতিপক্ষের ওপর এভাবে ছড়ি ঘোরালেও নিজেদের মাঠে লিভারপুলের জয়টা শেষ পর্যন্ত ওই ১–০ গোলেরই। এ ম্যাচে ইয়ুর্গেন ক্লপের দল পয়েন্টও খোয়াতে পারত। কিন্তু ৪৫ মিনিটে পাওয়া পেনাল্টি থেকে গোল করতে পারেননি ওয়েস্ট হামের জ্যারড বাউয়েন

পেনাল্টিটি আদায় করেছিলেন বাউয়েন নিজেই। তাঁকে ঠেকাতে পেনাল্টি বক্সে ফাউল করেছেন লিভারপুলের জো গোমেজ। ভিএআর দেখে ৩ মিনিট পর পেনাল্টির সিদ্ধান্ত দেন রেফারি। শটটি বাউয়েন ভালোই নিয়েছিলেন। কিন্তু ডান দিকেঝাঁপিয়ে পড়ে সেটি দারুণ দক্ষতায় ঠেকিয়ে দেন লিভারপুলের ব্রাজিলিয়ান গোলকিপার আলিসন।

ওযেস্ট হামের ওপর ছড়ি ঘুরিয়েও লিভারপুলের একটির বেশি গোল না পাওয়ার কারণ ফিরমিনো=সালাহদের মিসের মহড়া। দ্বিতীয়ার্ধের শুরুতেই ব্যবধান বাড়ানোর সুযোগ পান ফিরমিনো। কিন্তু একা গোলকিপারকে পেয়েও তিনি বল মারেন বাইরে। এরপর সালাহও একইভাবে গোল মিস করেন। ৭৩ মিনিটে আরেকবার ফিরমিনো ওয়েস্ট হামের বক্সের মধ্যে বল পেয়েও কাজে লাগাতে পারেননি। এমন মিসের মহড়া অব্যাহত ছিল ম্যাচের শেষ দিকেও।

লিভারপুল তবু জয় নিয়ে মাঠ ছেড়েছে, আজ ব্রেন্টফোর্ডের মাঠ থেকে গোলশূন্য ড্র নিয়ে ফিরেছে চেলসি। একই সময়ে শুরু হওয়া আরেক ম্যাচে এভারটনকে ১–০ গোলে হারিয়েছে নিউক্যাসল।

ওয়েস্ট হামের বিপক্ষে জয়ের পর ১০ ম্যাচ থেকে ১৬ পয়েন্ট হয়েছে লিভারপুলের। সমান ম্যাচে চেলসির পয়েন্ট ২০। এক ম্যাচ বেশি খেলে নিউক্যাসল পেয়েছে ১৮ পয়েন্ট।