ছন্দে থাকা দিবালার বিশ্বকাপ খেলা নিয়ে তখন সংশয় দেখা দেয়। তাঁকে হারিয়ে আক্রমণভাগে দুর্বল হয়ে পড়ে রোমাও। রোববার সিরি ‘আ’-তে নগর প্রতিদ্বন্দ্বী লাৎসিওর কাছে ১-০ ব্যবধানে হেরে যায় রোমা। এই ম্যাচে লাৎসিওর মাঝমাঠের মিলিনকোভিচ এবং আক্রমণভাগের চিরো ইম্মোবিলে খেলতে পারেননি। তাঁদের ছাড়াও রোমার বিপক্ষে লাৎসিও কীভাবে জিতল? ম্যাচ শেষে এই প্রশ্ন শুনতে হয়েছে মরিনিওকে।

পর্তুগিজ কোচ মরিনিও দিবালার প্রসঙ্গ টেনে এনে বলেন, ‘আমরা মিলিনকোভিচ আর ইম্মোবিলের কথা বলছি, কিন্তু দিবালার কথা বলছি না। সে আমাদের জন্য বেশি গুরুত্বপূর্ণ। কারণ, সে এমন একজন, যে আমাদের গোলে সহায়তা করতে পারে। এ ধরনের খেলোয়াড় যখন না থাকে, খেলাটা কঠিন হয়ে যায়।’

প্রায় এক মাস ধরে দিবালাকে ছাড়াই খেলছে রোমা। তবে অপেক্ষা শেষ হতে চলেছে বলে সুখবর শুনিয়েছেন মরিনিও, ‘সে বিশ্বকাপ খেলতে চায়। এ ক্ষেত্রে ‘না’ বলাটাও কঠিন। ওর চোটের অবস্থার উন্নতি ঠিকঠাকভাবে চললে আশা করছি, আগামী রোববার তুরিনোর বিপক্ষেই মাঠে ফিরবে।’

তুরিনোর বিপক্ষে রোমার ম্যাচের দিনই আর্জেন্টিনার বিশ্বকাপ দল ঘোষণা হওয়ার কথা। এবারের বিশ্বকাপে আর্জেন্টিনার অভিযান শুরু হবে ২২ নভেম্বর সৌদি আরবের বিপক্ষে ম্যাচ দিয়ে। ‘সি’ গ্রুপে দলটির অপর দুই প্রতিপক্ষ মেক্সিকো (২৬ নভেম্বর) ও পোল্যান্ড (৩০ নভেম্বর)।