প্রিমিয়ার লিগে আবাহনী সর্বশেষ চ্যাম্পিয়ন হয়েছিল ২০১৭-১৮ মৌসুমে। এর পর থেকেই দাপট বসুন্ধরা কিংসের। গত তিন মৌসুমের মতো এবারও কাগজে-কলমে সেরা দল বসুন্ধরা কিংসের। দেশের অন্যতম সেরা ফুটবলারদের সঙ্গে পরীক্ষিত পাঁচ বিদেশি মিলিয়ে গতবারের চেয়ে শক্তিশালী দল গড়েছে দলটি।

পেশাদার ফুটবলে আসার পর থেকেই বসুন্ধরা কিংসের মাথায় সেরার মুকুট। এর আগে যেটা লম্বা সময় ধরে ছিল আবাহনীর। সর্বোচ্চ ছয়বারের প্রিমিয়ার লিগ চ্যাম্পিয়নরা এর পর থেকে বসুন্ধরা কিংসের কাছে ধরাশায়ী। তবে এবার আবাহনী যেন আটঘাট বেঁধেই নেমেছে চ্যাম্পিয়ন হতে।

শুধু লিগ নয়, স্বাধীনতা কাপ ও ফেডারেশন কাপও জিততে চায় আকাশি–নীল দলটি। ম্যানেজার সত্যজিত দাসের কণ্ঠে সেই আত্মবিশ্বাসের সুর, ‘এবার মৌসুমের প্রতিটি শিরোপাই জিততে চাই আমরা।’

গত মৌসুমে চোট ভুগিয়েছিল আবাহনীকে। এবার তাই আবাহনী নজর দিয়েছে রিজার্ভ বেঞ্চ শক্তিশালী করার দিকে। একই সঙ্গে পাঁচ বিদেশি নিয়ে স্বপ্ন দেখছে সেরা হওয়ার।
গতবার লিগে চ্যাম্পিয়ন হতে না পারলেও আবাহনী স্বাধীনতা কাপ ও ফেডারেশন কাপ জিতেছিল। তবে লিগে রানার্সআপ হওয়ায় অন্য অর্জনগুলোও ধূসর হয়েছে।

এর ওপর গত মৌসুমে আবাহনীর হয়ে দুটি টুর্নামেন্ট ও লিগে ২২ গোল করা ব্রাজিলিয়ান স্ট্রাইকার দোরিয়েলতন গোমেজকে এবার দলে ভিড়িয়েছে বসুন্ধরা কিংস। এর সঙ্গে গত মৌসুমে একাদশের নিয়মিত দুই মুখ ডিফেন্ডার টুটুল হোসেন বাদশা ও উইঙ্গার রাকিব হোসেনও বসুন্ধরা কিংসের জার্সিতে খেলবে। আবাহনী এই পজিশনে এবার দেখেশুনে নিয়েছে পাঁচ বিদেশি।

গত মৌসুমে খেলা ব্রাজিলিয়ান অ্যাটাকিং মিডফিল্ডার রাফায়েল আগুস্তো ও কোস্টারিকান প্লেমেকার দানিয়েল কলিনদ্রেসের সঙ্গে চুক্তি বাড়িয়েছে। এর সঙ্গে দলে নিয়েছে সিরিয়ান ডিফেন্ডার ইউসুফ মোহাম্মদকে। সিরিয়া অনূর্ধ্ব-২৩ দলের অধিনায়ক ছিলেন ইউসুফ।

সম্প্রতি জাতীয় দলেও ডাক পেয়েছেন তিনি। আবাহনী দলে আরও দুই নতুন মুখ—ব্রাজিলিয়ান ফরোয়ার্ড গেটারসন আলভেজ ও নাইজেরিয়ান স্ট্রাইকার পিটার নোরাহ। দুজনেরই বয়স ৩১ বছর।

আলভেজ সর্বশেষ মৌসুমে খেলেছেন ব্রাজিলের সিরি বির দল অপেরারিও ফেরভিয়ারিও স্পোর্টস ক্লাবে। নাইজেরিয়ান পিটার নোরাহ সদ্য শেষ হওয়া জর্ডান লিগের চ্যাম্পিয়ন দল আল ফায়সালি এসসি থেকে এসে দু–এক দিন পর যোগ দেবেন ক্যাম্পে। এ ছাড়া ফরোয়ার্ড লাইনে নাবিব নেওয়াজের সঙ্গে বসুন্ধরা কিংস থেকে আসা এলিটা কিংসলিকেও দেখা যাবে।

স্থানীয় খেলোয়াড়দের মধ্যে আবাহনী এবার জোর দিয়েছে তারুণ্যে। সাইফ স্পোর্টিং ক্লাব থেকে নিয়েছে পরীক্ষিত ডিফেন্ডার রহমত মিয়া, রিয়াদুল হাসান, মিডফিল্ডার মারাজ হোসেন ও ফয়সাল হোসেনকে। আবাহনীর দুই উইংয়ে খেলবেন জুয়েল রানা ও ফয়সাল। চট্টগ্রাম আবাহনীর মিডফিল্ডার সোহেল রানাও যোগ দিয়েছেন আবাহনীতে। মোহামেডান থেকে এসেছেন দুই উইঙ্গার আলমগীর মোল্লা ও মাসুদ রানা। ডিফেন্ডার সুশান্ত ত্রিপুরা, রেজাউল করিম এবারও আবাহনীতেই খেলবেন। গোলপোস্টের নিচে যথারীতি চেনামুখ শহীদুল আলম।

গত মৌসুমে আবাহনী এএফসি কাপের বাছাইয়ের প্লে-অফে হারে কলকাতার এটিকে মোহনবাগানের কাছে। এবার তাই রিজার্ভ বেঞ্চ শক্তিশালী রাখতে আপস করতে চান না সত্যজিত দাস, ‘যেমন দল গঠন করার দরকার ছিল, তেমন দলই গড়েছি। বাকিটা ফুটবলারদের মাঠে খেলতে হবে। গতবার চোট আমাদের খুব ভুগিয়েছে। প্রতিটি পজিশনে এবার তাই দুজন করে ভালো ফুটবলার নিয়েছি।’

পর্তুগিজ কোচ মারিও লেমোসের অধীনে ২০ অক্টোবর প্রাক্‌-মৌসুম অনুশীলন শুরু করেছে আবাহনী। ১৫ নভেম্বর মুন্সিগঞ্জ বীরশ্রেষ্ঠ মতিউর রহমান স্টেডিয়ামে স্বাধীনতা কাপে আবাহনী মৌসুমের প্রথম ম্যাচটি খেলবে উত্তরা ফুটবল ক্লাবের বিপক্ষে।