অবশ্য লিসান্দ্রো মার্তিনেজ মিডফিল্ডার না ডিফেন্ডার—এ নিয়ে প্রশ্ন থাকতে পারে। মূলত বাঁ পায়ের এই ডিফেন্ডার বল পায়ে এতটাই দক্ষ যে একাধিক পজিশনে খেলতে পারেন অনায়াসেই। সেন্টারব্যাক হিসেবে ক্যারিয়ার শুরু করা মার্তিনেজ খেলতে পারেন লেফটব্যাক পজিশনেও।

আবার গত মৌসুমে এই টেন হাগই বল পায়ে দক্ষতার জন্য তাঁকে রক্ষণাত্মক মিডফিল্ডার হিসেবে খেলিয়েছেন। এমন এক সব্যসাচী খেলোয়াড়ের জন্য পাঁচ কোটি ইউরো তো খরচ করাই যায়!

default-image

মার্তিনেজের প্রতি প্রথমে আগ্রহী ছিল আর্সেনাল। কিন্তু এবার ফাবিও ভিয়েরা, গাব্রিয়েল জেসুসদের কেনা আর্সেনাল শেষমেশ মার্তিনেজকে পাওয়ার লড়াইয়ে ইউনাইটেডের কাছে হার মানছে। ইউনাইটেডের ফুটবল পরিচালক জন মারটো ও প্রধান নির্বাহী রিচার্ড আরনল্ড নিজে আমস্টারডামে গিয়ে আয়াক্সের সঙ্গে মার্তিনেজের দলবদল ফি-র ব্যাপারে আলোচনা করে এসেছেন।

আয়াক্সের প্রধান নির্বাহী এডউইন ফন ডার সার আবার ইউনাইটেডেরই সাবেক কিংবদন্তি গোলকিপার। ফলে মার্তিনেজের দামের ব্যাপারে দুই পক্ষের ঐকমত্যে পৌঁছাতে বেশি বেগ পেতে হয়নি।

মার্তিনেজ নিজেও সাবেক কোচ টেন হাগের অধীন আবারও খেলার জন্য মুখিয়ে আছেন। আয়াক্সের সবুজ সংকেত পেলেই মেডিকেল পরীক্ষার জন্য ম্যানচেস্টারে উড়াল দেবেন এই আর্জেন্টাইন।

সবুজ সংকেত পেতে দেরি হওয়ার একটাই কারণ, মার্তিনেজের বিকল্প কোনো খেলোয়াড়কে দলে না এনে মার্তিনেজকে ছাড়তে চাইছে না আয়াক্স। রেঞ্জার্সের নাইজেরিয়ান সেন্টারব্যাক ক্যালভিন ব্যাসিকে দলে নেওয়ার ব্যাপারে আগ্রহী আয়াক্স।

default-image

আড়াই কোটি ইউরোর ব্যাসিকে দলে টানার প্রক্রিয়া শেষ হলেই মার্তিনেজ পেয়ে যাবেন ম্যানচেস্টারে যাওয়ার টিকিট। মেডিকেল পরীক্ষা শেষ করে অস্ট্রেলিয়ায় প্রাক্‌-মৌসুম সফর করতে থাকা ইউনাইটেডের স্কোয়াডের সঙ্গে যোগ দেবেন এই মিডফিল্ডার। ২০২৭ সাল পর্যন্ত মার্তিনেজের সঙ্গে চুক্তি হচ্ছে ম্যানচেস্টার ইউনাইটেডের।

গত মৌসুমে আয়াক্সের হয়ে ৩৬ ম্যাচ খেলা মার্তিনেজ আর্জেন্টিনার হয়ে ৭ ম্যাচ খেলে ফেলেছেন এর মধ্যে।

ফুটবল থেকে আরও পড়ুন
মন্তব্য করুন