জার্মান সুপার কাপে কাল লাইপজিগকে ৫-৩ গোলে বিধ্বস্ত করেছে বায়ার্ন। আট গোলের এই ম্যাচ জন্ম দিয়েছে রেকর্ডের। প্রতিযোগিতাটির ইতিহাসে কোনো ম্যাচে এটাই সর্বোচ্চ গোলের রেকর্ড। এর আগে ১৯৮৯ সালের ম্যাচে সাত গোলের জন্ম দিয়েছিল বরুসিয়া ডর্টমুন্ড এবং বায়ার্ন। ইউলিয়ান নাগলসমানের দল কাল রাতে রোমাঞ্চ ছড়িয়ে রেকর্ডটি নতুন করে লিখিয়েছে।

প্রথমার্ধেই ৩-০ গোলে এগিয়ে যায় বায়ার্ন। ১৪, ৩১ ও ৪৫ মিনিটে গোল করেন যথাক্রমে জামাল মুসায়ালা, সাদিও মানে ও বেনজামিন পাভার্দ। সেনেগালিজ তারকা মানের এ ম্যাচ দিয়ে অভিষেক ঘটল বায়ার্নের জার্সিতে। মানে ও পাভার্দকে গোল দুটি বানিয়ে দেন মুসায়ালা ও সার্জ নাব্রি।

default-image

২০১০-১১ সালে জার্মান সুপার কাপ নতুন করে শুরুর পর প্রথম দল হিসেবে প্রথমার্ধেই তিন গোলের নজির গড়ে বিরতিতে যায় বায়ার্ন। লুকাস হার্নান্দেজ, দায়োত উপামেকানো ও আলফানসো ডেভিসদের নিয়ে সাজানো নাগালসমানের রক্ষণও প্রথমার্ধে দারুণ খেলেছে। এই অর্ধে বায়ার্নের গোলপোস্ট তাক করে মাত্র একটি শট নিতে পেরেছে লাইপজিগ।

কিন্তু বিরতির পর পরিস্থিতি পাল্টে যায়। ৫৬ মিনিটে লাইপজিগের আন্দ্রে সিলভার হেড বুন্দেসলিগা চ্যাম্পিয়নদের গোলপোস্টে লেগে লক্ষ্যভ্রষ্ট হয়। এর তিন মিনিট পর লাইপজিগের গোলের খাতা খোলেন মার্সেল হলস্টেনবার্গ।

৬৫ মিনিটে নাব্রির গোলে আবারও তিন গোলের ব্যবধান ধরে রাখে বায়ার্ন (১-৪)। লাইপজিগ এরপরও ঘুরে দাঁড়ানোর চেষ্টা করেছে। ৭৭ মিনিটে ক্রিস্টোফার এনকুকু ও ৮৯ মিনিটে দানি ওলমো গোল করে ব্যবধান কমান (৩-৪)। যোগ করা সময়ের ৮ মিনিটে ম্যাচের শেষ কিকে গোল করেন বদলি হয়ে নামা বায়ার্ন তারকা লেরয় সানে। মৌসুমের প্রথম শিরোপা জয় নিশ্চিত করে মাঠ ছাড়ে বায়ার্ন।

default-image

জার্মান সুপার কাপ এ নিয়ে ১০ম বারের মতো জিতল বায়ার্ন। জার্মানির আর কোনো দলই এত বেশিবার সুপার কাপ জিততে পারেনি। এ নিয়ে শেষ তিনবারই সুপার কাপ ঘরে তুলল বায়ার্ন। এর আগে টানা তিনবার জার্মান সুপার কাপ জয়ের নজিরও শুধু বায়ার্নই গড়েছে (২০১৬ থেকে ২০১৮)। ৫ আগস্ট থেকে শুরু হবে বুন্দেসলিগার নতুন মৌসুম।

ফুটবল থেকে আরও পড়ুন
মন্তব্য করুন