চেলসি, পিএসজি, ম্যানচেস্টার ইউনাইটেডসহ বেশ কিছু ক্লাব দেম্বেলেকে দলে নেওয়ার ব্যাপারে আগ্রহী ছিল। ২০১৭ সালে বরুসিয়া ডর্টমুন্ড থেকে বার্সেলোনায় নাম লেখানো এই ফরোয়ার্ড কাতালান ক্লাবটার সঙ্গে চুক্তি করেছিলেন ২০২২ সালের জুন পর্যন্ত, পাঁচ বছরের। সে চুক্তির মেয়াদ শেষ হয়ে যায় গত এক তারিখে।

অনেক চেষ্টা-চরিত্র করেও এতদিন চুক্তি নবায়ন করার ব্যাপারে দেম্বেলেকে রাজি করাতে পারছিল না বার্সেলোনা। বাড়তি বেতনের দাবি থেকেও সরে আসছিলেন না বিশ্বকাপজয়ী এই উইঙ্গার। ওদিকে দেম্বেলের প্রত্যাশিত বেতন দেওয়ার অবস্থায় ছিল না আর্থিক সংকটে থাকা বার্সেলোনা। ফলে নিয়ম অনুযায়ী গত এক তারিখে বার্সেলোনার সঙ্গে দেম্বেলের চুক্তির মেয়াদ শেষ হয়ে যায়। এই ক’দিন ক্লাবহীন হয়েই ছিলেন দেম্বেলে।

তবে কয়েকদিন আগেও দেম্বেলের প্রতি আগ্রহ দেখানো পিএসজি ও চেলসির মতো ক্লাবগুলো শেষমেশ পিছু হটে। চেলসি দলে টেনেছে ম্যানচেস্টার সিটির রহিম স্টার্লিংকে, ওদিকে দলে মেসি-এমবাপ্পে-নেইমার থাকায় পিএসজির মনে হয়নি একই ধরনের অন্য কোনো ফরোয়ার্ডের প্রয়োজন আছে। সব মিলিয়ে দেম্বেলেও বুঝেছেন, বার্সেলোনায় থেকে না গেলে অন্য কোনো বড় ক্লাব তাঁর প্রতি আগ্রহী না-ও হতে পারে। শেষমেশ তাই কাতালানপয়াড়াতেই থেকে যাচ্ছেন এই ফরোয়ার্ড।

কাতালান সংবাদমাধ্যম মুন্দো দেপোর্তিভোর সাংবাদিক ফার্নান্দো পোলো জানিয়েছেন, আগের বেতনের চেয়ে ৪০ শতাংশ কম বেতনে বার্সার হয়ে খেলতে রাজি হয়েছেন দেম্বেলে। আগামী দুই বছর কেমন খেলেন, সেটার ওপরেও নির্ভর করবে দেম্বেলের বেতন। বার্সার কোচ নিজেই খুব করে চেয়েছিলেন দেম্বেলেকে যেন দলে রাখা হয়, শেষমেশ জাভির ইচ্ছাই পূরণ হচ্ছে।

ওদিকে আনুষ্ঠানিকভাবে বার্সেলোনা জানিয়েছে, ব্রাজিলিয়ান উইঙ্গার রাফিনিয়ার দামের ব্যাপারে লিডস ইউনাইটেডের সঙ্গে ঐক্যমত্যে পৌঁছেছে তারা। শারীরিক পরীক্ষায় কোনো সমস্যা না ধরা পড়লে বার্সেলোনায় আসছেন এই ব্রাজিলিয়ান ফরোয়ার্ড। ২০২৭ সাল পর্যন্ত বার্সেলোনার সঙ্গে চুক্তি হচ্ছে রাফিনিয়ার।

আপাতত লিডসকে ৫ কোটি ৮০ লাখ দিচ্ছে বার্সেলোনা। পারফরম্যান্স বাবদ অন্যান্য শর্তপূরণ সাপেক্ষে লিডসের সামনে সব মিলিয়ে রাফিনিয়া বাবদ ৬ কোটি ৭০ লাখ ইউরো উপার্জন করার সুযোগ আছে।

ফুটবল থেকে আরও পড়ুন
মন্তব্য করুন