এমন সব সমীকরণ মাথায় নিয়ে খেলতে নেমে ম্যাচের শুরুটা ভালোই করে লিভারপুল। যদিও নিজস্ব ঢংয়ে বল নিয়ন্ত্রণে নিতে খুব একটা দেরি করেনি পেপ গার্দিওলার দল। ম্যাচে তাদের দাপট দেখে গ্যারি নেভিল বলছিলেন—ম্যাচের প্রথম পাঁচ মিনিট ভালো করলেও, এই সিটি ম্যাচ একেবারেই শেষ করে দিবে।

১৫ মিনিটে প্রথম সুযোগ আসে হলান্ডের সামনে। যদিও সেটা কাজে লাগাতে পারেননি তিনি। ম্যাচের ১৪ মিনিটে দারুণ সুযোগ আসে লিভারপুলের সামনে। সালাহরা সে সুযোগ নষ্ট করেন। ৩৬ মিনিটে আবারও বড় সুযোগ পায় লিভারপুল। তবে এবারও ফিনিশ করতে পারেননি সালাহ। ম্যাচের প্রথমার্ধে কোনো দলই সুযোগ কাজে লাগাতে না পারায় ব্যবধান থাকে ০–০।

৫৩ মিনিটে গোল পান ফর্মের তুঙ্গে থাকা ফিল ফোডেন। তবে হলান্ডের করা ফাউলের কারণে গোলটি বাতিল করেন রেফারি। এরপর ম্যাচের ৭৬ মিনিটে গোল করেন সালাহ। চলতি মৌসুমে সিটির বিপক্ষে দুইবারের দেখায় দুটিই জিতল লিভারপুল। তিন ম্যাচ পর লিগে জয়ের দেখা পেল লিভারপুল। আর আসরে প্রথম হারের স্বাদ পেল গত বর্তমান চ্যাম্পিয়ন সিটি।

৯ ম্যাচে ১৩ পয়েন্ট নিয়ে টেবিলের আটে লিভারপুল। ১০ ম্যাচে ২৩ পয়েন্ট নিয়ে দুইয়ে ম্যানচেস্টার সিটি।