১০ মিনিটে ফুলব্যাক সিরাত জাহানের মাঠ ছাড়া শাপেবর হয়েছে বাংলাদেশের জন্য। তাঁর বদলে নামা ফরোয়ার্ড শামসুন নাহার জুনিয়র কাজের কাজটি করেছেন। নেমেই তিন মিনিট পরই মনিকা চাকমার ক্রসে বল নেপালের জালে পাঠান শামসুন নাহার।

টুর্নামেন্টে এটিই নেপালের জালে প্রথম গোল। ৪২ মিনিটে নেপালের ভুল পাস থেকে সাবিনা বল পেয়ে যান। সেই বল বাঁ পায়ের শটে ২-০ করে দেন কৃষ্ণা রানী সরকার।

default-image

গত কয়েক দিনে বৃষ্টি হওয়ায় দশরথ স্টেডিয়ামের মাঠ কাদাময়। স্বাভাবিক ফুটবল খেলতে পারছিল না দুই দলই। তবে প্রথম গোল খেয়ে পিছিয়ে পড়ে নেপাল কিছুটা চাপ তৈরি করে বাংলাদেশের ওপর। এই সময় বাংলাদেশকে রক্ষণ কাজেই ব্যস্ত থাকতে হয়েছে বেশি, যা এই টুর্নামেন্টে আগে দেখা যায়নি।

কর্নার থেকে বাংলাদেশ গোলকিপার রুপনা চাকমা ঠিকভাবে বল ধরতে পারেননি। এই সময় গোললাইন সেভ হয়েছে। বড় বাঁচাই বেঁচে গেছে বাংলাদেশ। কিন্তু খেলার ধারার বিরুদ্ধে দ্বিতীয় গোলটি করে ম্যাচের নিয়ন্ত্রণ নিয়েছে বাংলাদেশ।

অসুস্থতার কারণে নেপাল দলে নেই তাদের অন্যতম সেরা খেলোয়াড় সাবিত্রা ভান্ডারি। ফলে দলটির আক্রমণ কিছুটা গতি হারিয়েছে। তারপরও নিজেদের দর্শকদের সামনে সর্বোচ্চ চেষ্টাই করে গেছেন নেপালের মেয়েরা। কিন্তু বাংলাদেশ সুযোগ কাজে লাগিয়েছে। সেই সুবাদে শিরোপার সুবাসও পাচ্ছেন সাবিনা খাতুনেরা।

ফুটবল থেকে আরও পড়ুন
মন্তব্য করুন