পিএসজি ম্যাচের শুরুটাও করে ফেবারিটদের মতো। ম্যাচের ৭ মিনিটে প্রথম সুযোগ আসে নেইমারের সামনে। তবে নেইমার বাঁ পায়ের শটে বল জালে জড়াতে পারেননি। ম্যাচের ৯ মিনিটে আবারও সেই নেইমার, এবার অবশ্য ভুল করেননি ব্রাজিলিয়ান ফরোয়ার্ড। নেইমারের গোলে সহায়তা করেন উগো একিতিকে। একিতিকে অবশ্য নিজেও পোস্টে শট নিতে পারতেন, তবে ঝুঁকি না নিয়ে নেইমারের দিকেই বল বাড়ান।

তাতে ১-০ গোলে এগিয়ে যায় তারা। লিগে এটি নেইমারের ১১তম গোল। এরপর বলের দখল পিএসজি নিজেদের কাছে রাখলেও গোলের সামনে সুযোগ তৈরি করতে পারছিল না। কিলিয়ান এমবাপ্পে, সের্হিও রামোস সুযোগ পেলেও প্রথমার্ধে দলকে এগিয়ে দিতে পারেননি।

ম্যাচের দ্বিতীয়ার্ধে লরিয়াঁকে সমতায় ফেরান এনজো লে ফি। ১-১ সমতায় ফেরার পর এগিয়ে আরও মরিয়া হয়ে ওঠেন নেইমার-এমবাপ্পেরা। প্রথম গোল করা নেইমারের অ্যাসিস্টেই আবার এগিয়ে যায় পিএসজি। গোল করেন দানিলো পেরেরা। চলতি মৌসুমে লিগে এটি নেইমারের নবম অ্যাসিস্ট। ১৪ ম্যাচে ১২ জয় ও দুই ড্রয়ে ৩৮ পয়েন্ট নিয়ে শীর্ষস্থান আরও মজবুত করেছে ক্রিস্তফ গালতিয়ের পিএসজি।