পাভার যখন প্রথমবার জাতীয় দলে ডাক পান, তখনো ফ্রান্সের ফুটবলে খুব একটা পরিচিত মুখ ছিলেন না। খেলতেন বুন্দেসলিগার ক্লাব স্টুটগার্টে। ২০১৭ সালের নভেম্বরে ওয়েলস এবং জার্মানির বিপক্ষে দুটি প্রীতি ম্যাচ ছিল ফ্রান্সের।

default-image

ওই সময় জার্মানিতে খেলার অভিজ্ঞতাসম্পন্ন পাভারকে দলভুক্ত করেন দেশম। পরে এক সাক্ষাৎকারে পাভার জানিয়েছিলেন, জাতীয় দলে নাম ঘোষণার পর অনেকেই জিজ্ঞেস করেছিল তুমি কে?

বাকিরা না চিনলেও দেশম চিনেছিলেন ভালোমতোই। প্রীতি ম্যাচের পর রাশিয়া বিশ্বকাপের ২৩ জনের দলেও রেখে দেন রাইটব্যাকে খেলা এই ডিফেন্ডারকে। বিশ্বকাপের দ্বিতীয় রাউন্ডে আর্জেন্টিনার বিপক্ষে ফ্রান্সের ৪–৩ ব্যবধানের জয়ের ম্যাচে দারুণ এক গোল করেন পাভার, যা শেষ পর্যন্ত ওই বিশ্বকাপের সেরা গোলের স্বীকৃতি পায়। মনোনয়ন পায় বছরসেরা গোলের পুসকাস অ্যাওয়ার্ডেও। বিশ্বকাপ সাফল্যের সুবাদে ফ্রান্স ফুটবলে পরিচিত ও নিয়মিত মুখ হয়ে ওঠেন।

২০১৯ সালে স্টুটগার্ট ছেড়ে বায়ার্ন মিউনিখে যোগ দেন পাভার। এখনো খেলছেন মিউনিখের ক্লাবটিতেই। সামনেই উয়েফা নেশনস লিগের ব্যস্ততা আছে ফ্রান্স জাতীয় দলের। নভেম্বরে আছে কাতার বিশ্বকাপ। এমন সময় চ্যাম্পিয়নস লিগে বার্সেলোনার বিপক্ষে পাওয়া চোটের কারণে পুনর্বাসনে আছেন।

default-image

জাতীয় দলের সামনের দীর্ঘমেয়াদি ব্যস্ততা নিয়ে ফরাসি টেলিভিশন ‘টিএফওয়ানের টেলিফুট’ অনুষ্ঠানে অংশ নিয়েছিলেন পাভার। ফ্রান্স দলে কোচের ভূমিকা ও ইতিবাচক প্রভাব সম্পর্কে বলতে গিয়ে দেশমকে নিয়ে উচ্ছ্বাস প্রকাশ করেন পাভার, ‘তিনি এমন একজন ম্যানেজার, যিনি খেলোয়াড়দের সঙ্গে খুবই ঘনিষ্ঠ। সবার সঙ্গে প্রচুর মজা করেন। প্রচুর খেলাও দেখেন। আমি যখন স্টুটগার্টে খেলতাম, কেউ আমাকে তেমন চিনত না, তখন আমার খেলা দেখতে গিয়েছিলেন তিনি।’

খুব বেশি মানুষ যখন চিনত না, ওই সময় খেলা দেখে জাতীয় দলে ডাক দেওয়ায় দেশমের প্রতি ভীষণভাবে কৃতজ্ঞ পাভার; কৃতজ্ঞ এ মুহূর্তে শতভাগ ফিট না থাকার পরও তাঁর প্রতি আস্থা রাখায়, ‘তাঁর সঙ্গে আমার খুবই বন্ধুত্বপূর্ণ সম্পর্ক। আমি তাঁর কাছে অনেক ঋণীও। মাঠে আমি তাঁর জন্য জান দিয়ে ফেলতে পারব।’

নেশনস লিগে বৃহস্পতিবার অস্ট্রিয়ার বিপক্ষে খেলবে ফ্রান্স, দুই দিন পর ডেনমার্কের বিপক্ষে।

ফুটবল থেকে আরও পড়ুন
মন্তব্য করুন