এবারের মৌসুমে পুরুষ ও নারী ফুটবলারদের দলবদল একই দিনে সেরেছে বসুন্ধরা কিংস। দলবদল উপলক্ষে শুধু হাতি নয়, ঘোড়ার গাড়িতেও এসেছিলেন ফুটবলাররা। ঢাকঢোল পিটিয়ে বাদ্যযন্ত্রের তালে তালে বসুন্ধরা কিংসের ফুটবলার ও সমর্থকেরা ঢোকেন বাফুফে ভবনে। এরপর দলবদলের আনুষ্ঠানিকতা শেষে বাফুফে ভবনের সামনে বসুন্ধরার সমর্থকেরা নেচে–গেয়ে ‘ফ্ল্যাশ মব’ করেন।

গত মৌসুমে স্বাধীনতা কাপ খেললেও ফেডারেশন কাপে অংশ নেয়নি বসুন্ধরা কিংস। গতবার স্বাধীনতা কাপে চ্যাম্পিয়ন হয়েছিল আবাহনী। আর রানার্সআপ হয়েছিল বসুন্ধরা কিংস। শুধু প্রিমিয়ার লিগেই চ্যাম্পিয়ন হয়েছিল বসুন্ধরা কিংস। এমনকি এএফসি কাপের গ্রুপ পর্ব থেকে বিদায় নেয়। তবে এবার লিগ শিরোপা ধরে রাখার পাশাপাশি প্রতিটি টুর্নামেন্টে সাফল্য চান বসুন্ধরা কিংসের স্প্যানিশ কোচ অস্কার ব্রুজোন।

বসন্ধুরা কিংস ছেড়ে এবার অন্য দলে চলে গেছেন মোহাম্মদ ইব্রাহিম, আলমগীর রানা, মাহবুবুর রহমান, ওবায়দুর নবাব, এলিটা কিংসলি, কেষ্ট কুমার, ফাহিম মোর্শেদ, মনসুর আমিন। তবে যুব দলের ফুটবলার পিয়াস আহমেদকে ধারে নিয়েছে শেখ জামাল ধানমন্ডি ক্লাব।

আজ সব মিলিয়ে ২৮ জন ফুটবলারকে নিবন্ধন করিয়েছে বসুন্ধরা কিংস। মূলত গত মৌসুমের বেশির ভাগ ফুটবলারের সঙ্গে চুক্তি বাড়িয়েছে লিগ চ্যাম্পিয়নরা। দেশি ও বিদেশি মিলিয়ে নিয়েছে ৯ জন নতুন ফুটবলার। এর মধ্যে তিন নতুন বিদেশি ফুটবলারের অন্যতম ব্রাজিলিয়ান দোরিয়েলতন গোমেজ গত মৌসুমে খেলেন আবাহনীতে। ইরানি ডিফেন্ডার খালেদ শাফেইর জায়গায় নিয়েছে আরেক ইরানি মোহাম্মদ রেজা খানজাদেহকে।

এ ছাড়া সাইফ স্পোর্টিং থেকে এসেছেন উজবেক মিডফিল্ডার আসরর গফুরভ। স্থানীয় খেলোয়াড়দের মধ্যে এবার বসুন্ধরা কিংসের জার্সিতে দেখা যাবে ডিফেন্ডার টুটুল হোসেন বাদশা, মাহমুদুল হাসান, আতিকুজ্জামান, মিডফিল্ডার সাব্বির হোসেন, ফরোয়ার্ড রাকিব হোসেন ও রাইট ব্যাক সাদ উদ্দিনকে। এ ছাড়া গত মৌসুমে মোহামেডানে ধারে খেলতে যাওয়া শেখ মোরসালিনকেও এবার দেখা যাবে বসুন্ধরা কিংসের জার্সিতে। ২৮ জনের বাইরে ইংল্যান্ডপ্রবাসী নাবিল রহিমকে দলে নেওয়ার জন্য চেষ্টা করছে বসুন্ধরা। দলের সঙ্গে অনুশীলন করছেন ১৯ বছর বয়সী উইঙ্গার। নাবিল রহিমের জাতীয় পরিচয়পত্র ও পাসপোর্ট তৈরি হলে তাঁকে নিবন্ধন করাবে বসুন্ধরা কিংস।

গত দুবার এএফসি কাপের গ্রুপ পর্ব পার হতে না পারলেও এবার বসুন্ধরা কিংসের সুযোগ রয়েছে এএফসি চ্যাম্পিয়নস লিগে খেলার। আর সে কারণে আনিসুর রহমান, তপু বর্মণ, ইয়াসিন আরাফাত, তারিক কাজী, আতিকুর রহমান ফাহাদ, মাসুক মিয়া, বিপলু আহমেদ, সোহেল রানা, মতিন মিয়া, সুমন রেজা ও বিশ্বনাথ ঘোষদের মতো নিয়মিত খেলোয়াড়দের চুক্তি বাড়িয়েছে বসুন্ধরা কিংস।

যথারীতি গত মৌসুমে শিরোপা জেতানো রবসন রবিনহো ও মিগুয়েইল ফেরেইরাকে এবারও দেখা যাবে বসুন্ধরার জার্সিতে।

এবার দল নিয়ে দারুণ আশাবাদী অস্কার ব্রুজোন, ‘আমাদের অনেক ফুটবলারকে রেখে দিয়েছি। সঙ্গে যেসব জায়গায় সমস্যা হচ্ছিল, সেটা মাথায় রেখে নতুন কজনকে নেওয়া হয়েছে। ওদের অন্তর্ভুক্তি কিংসের শক্তি নিঃসন্দেহে আরও বাড়িয়ে দেবে। আমরা এরই মধ্যে প্রাক–মৌসুম প্রস্তুতি শুরু করেছি। একটা ভারসাম্যপূর্ণ দল নিয়ে শুধু লিগ নয়, বাকি শিরোপাগুলো জিততে চাই। এ ছাড়া আন্তর্জাতিক পর্যায়ে সাফল্য পেতে চাই আমরা।’

নারী ফুটবল দলের জন্য এবার বসুন্ধরা কিংস কোচ হিসেবে নিয়েছে সৈয়দ গোলাম জিলানীকে। প্রিমিয়ার লিগের পুরুষ ফুটবলে রহমতগঞ্জের কোচ জিলানী এবারও চ্যাম্পিয়ন হওয়ার স্বপ্ন দেখছেন। বসুন্ধরা কিংসের নারী ফুটবল দলে খেলবেন সাফ চ্যাম্পিয়ন জাতীয় দলের সাবিনা খাতুন, মাসুরা পারভীন, কৃষ্ণা রানী সরকার, মনিকা চাকমা, সানজিদা আক্তারসহ একদল ফুটবলার। এই দল নিয়ে এবারও মেয়েদের লিগে চ্যাম্পিয়ন হতে চান নতুন কোচ গোলাম জিলানী।