লেভা বরুসিয়া ডর্টমুন্ড ও বায়ার্ন মিউনিখে থাকার সময় থেকেই তাঁর রিয়ালে যাওয়ার গুঞ্জন শোনা যায়। ২০১৩ সালে রিয়ালের প্রস্তাবিত চুক্তিপত্রও ইন্টারনেটে ছড়িয়ে পড়ে। তবে কোনো গুঞ্জনই শেষ পর্যন্ত আলোর মুখ দেখেনি।

default-image

উল্টো গ্রীষ্মের দলবদলে রিয়ালের চিরপ্রতিদ্বন্দ্বী বার্সাতে পাড়ি জমিয়েছেন এই স্ট্রাইকার। রিয়ালে খেলার স্বপ্ন দেখা লেভা কেন বার্সাকে বেছে নিলেন? জবাবে লেভা বলেছেন, ‘আমি দেখি আমাকে পেতে বার্সেলোনা কতটা উন্মুখ! আমি জানতাম, এই দলবদল রিয়ালের সঙ্গে আমাকে জড়িয়ে অতীতের যেকোনো সম্ভাবনার চেয়ে অধিক বাস্তব।’

এর আগে ২০১৮ সালেই লেভার রিয়ালে যেতে চাওয়ার খবর প্রকাশ করে মার্কা। লেভার ঘনিষ্ঠ এক সূত্রের বরাত দিয়ে স্প্যানিশ সংবাদমাধ্যম মার্কা লিখেছিল, ‘লেভানডফস্কি রিয়ালের হয়ে খেলার স্বপ্ন দেখেন।’

লেভা অবশ্য এই সাক্ষাৎকারে রিয়ালের হয়ে খেলার স্বপ্ন দেখার কথা সরাসরি বলেননি। লা লিগায় যাওয়াটা তাঁর স্বপ্ন ছিল জানিয়ে লেভা আরও বলেছেন, ‘স্পেনে থাকা এবং লা লিগায় খেলাটা সব সময় আমার স্বপ্ন ছিল। এটি কেবল খেলোয়াড়ি দিক থেকেই নয়, ব্যক্তিগত জায়গা থেকেও।’

default-image

বার্সায় আসার আরও সুবিধার কথা বলতে গিয়ে লেভা যোগ করেন, ‘মুক্ত বাতাসে নিশ্বাস নেওয়া সামনের দিনগুলোতে আমাকে ক্লান্তিহীন থাকতে সাহায্য করবে।’ তবে বায়ার্নে ক্লান্ত বোধ করার কথা অস্বীকার করেন লেভা, ‘আমি জার্মানিতে তেমনটা (ক্লান্তি) বোধ করিনি। তবে আমি অনুভব করেছিলাম যে এটা যেকোনো মৌসুমে চলে আসতে পারে।’

বার্সেলোনায় নিজের গোপনীয়তা রক্ষার বিষয়টি নিয়েও বেশ আনন্দিত তিনি। তবে পরিস্থিতি যে বদলাতে পারে, সেটিও জানা আছে তাঁর, ‘এটা যতটা খারাপ ভেবেছিলাম, ততটা নয়। মানুষ আমার গোপনীয়তাকেও সম্মান করে। তবে অবশ্যই বার্সা একটি পর্যটনকেন্দ্র। ভ্রমণের মৌসুমে প্রচুর মানুষ ঘুরতে আসবে। তখন এটা বদলে যেতে পারে। পারিবারিকভাবে আমরা বেশ সক্রিয়। হাঁটতেও আমরা খুব পছন্দ করি।’

বার্সার হয়ে মাঠের খেলায় অবশ্য দারুণ শুরু পেয়েছেন লেভা। ম্যাচের পর ম্যাচে গোল করে চলেছেন তিনি। লা লিগায় এখন পর্যন্ত ৬ ম্যাচে ৮ গোল করেছেন লেভা। বার্সার এই গোলমেশিন মৌসুম শেষে কোথায় গিয়ে থামেন, সেটিই এখন দেখার অপেক্ষা।

ফুটবল থেকে আরও পড়ুন
মন্তব্য করুন