এটুকু হতাশা হলেও আর্জেন্টিনার সমর্থকদের জন্য খুশির সংবাদও আছে। কাল রাতে কলম্বিয়ার এস্তাদিও সেন্তিনারিও স্টেডিয়ামে কোপা আমেরিকার তৃতীয়স্থান নির্ধারণী ম্যাচে প্যারাগুয়েকে ৩-১ গোলে হারিয়ে ২০২৩ বিশ্বকাপে খেলার টিকিট কেটেছে আর্জেন্টিনার মেয়েদের জাতীয় দল।

আগামী বছর ২০ জুলাই থেকে শুরু হবে মেয়েদের বিশ্বকাপ। মেয়েদের এই বিশ্বকাপেই প্রথমবারের মতো দেখা যাবে ৩২ দলের টুর্নামেন্ট। এর আগে ২৪ দল নিয়ে আয়োজিত হয়েছে মেয়েদের বিশ্বকাপ। অস্ট্রেলিয়া ও নিউজিল্যান্ড ২০২৩ নারী বিশ্বকাপের আয়োজক দেশ।

default-image

আগেই সবার জানা ছিল, মেয়েদের কোপা আমেরিকায় পারফরম্যান্স দক্ষিণ আমেরিকা অঞ্চল থেকে ২০২৩ বিশ্বকাপের মূল পর্বে খেলার ক্ষেত্রে বিবেচনায় নেওয়া হবে। আর্জেন্টিনা মিডফিল্ডার রোমিনা নুনেজের আত্মঘাতী গোলে ৩৯ মিনিটে এগিয়ে গিয়েছিল প্যারাগুয়ের মেয়েরা। ৭৭ মিনিট পর্যন্ত এই লিড ধরেও রেখেছিল প্যারাগুয়ে। কিন্তু ৭৮ মিনিটে ফরোয়ার্ড ইয়ামিলা রদ্রিগেজের গোলে সমতায় ফেরে আর্জেন্টিনা।

৯০ মিনিটে ফ্লোরেনসিয়া বোনসেগুনদো এবং পরের মিনিটে রদ্রিগেজের দ্বিতীয় গোলে জয় নিশ্চিত হয়ে যায় আর্জেন্টিনার। আর্জেন্টিনা এর আগে সেমিফাইনালে কলম্বিয়ার কাছে ১-০ গোলে হেরেছে। প্যারাগুয়েকে ২-০ গোলে হারিয়ে ফাইনালে ওঠে ব্রাজিল।কোপা আমেরিকার এই টুর্নামেন্ট থেকে ২০২৩ নারী বিশ্বকাপে সরাসরি তিনটি দল খেলতে পারবে।

প্লে অফের জন্যও দুটি জায়গা বরাদ্দ আছে। সেমিফাইনালে জয়ী দুই দল এবং তৃতীয়স্থান নির্ধারণী ম্যাচে জয়ী দল সরাসরি খেলবে বিশ্বকাপের চূড়ান্ত পর্বে। অর্থাৎ, সেমিফাইনালে জয়ী ব্রাজিল ও কলম্বিয়া এবং তৃতীয়স্থান নির্ধারণী ম্যাচে কাল জয় তুলে নেওয়া আর্জেন্টিনার বিশ্বকাপে খেলা নিশ্চিত।

default-image

তৃতীয়স্থান নির্ধারণী ম্যাচে হেরে যাওয়া প্যারাগুয়েকে আন্তমহাদেশীয় প্লে অফ খেলতে হবে। কোপা আমেরিকার প্রতিটি গ্রুপ থেকে তৃতীয় হওয়া দলগুলো মিলে পঞ্চম স্থানের জন্য প্লে অফ ম্যাচ খেলবে। জয়ী দল উন্নীত হবে আন্তমহাদেশীয় প্লে অফে।

মেয়েদের বিশ্বকাপ শুরু হয় ১৯৯১ সালে। আর্জেন্টিনার মেয়েদের জাতীয় দল এই টুর্নামেন্টের ২০০৩, ২০০৭ ও ২০১৯ সংস্করণে অংশ নিয়ে একবারও গ্রুপ পর্ব পার হতে পারেনি। দক্ষিণ আমেরিকা অঞ্চল থেকে একমাত্র দল হিসেবে মেয়েদের বিশ্বকাপের সব কটি সংস্করণে খেলেছে ব্রাজিল।

ফুটবল থেকে আরও পড়ুন
মন্তব্য করুন