কোচের নাম গিওর্গে মুলতেসচু। ৭০ বছর বয়সী এই কোচ রোমানিয়ান। ২০২০–২১ সালে তিনি সর্বশেষ রোমানিয়ার ক্লাব দিনামো বুখারেস্তির কোচ ছিলেন। এই ক্লাব রোমানিয়ান লিগে তাঁর অধীনেই অবনমন এড়িয়েছে। বুখারেস্তিকে অবনমনের লজ্জার হাত থেকে বাঁচিয়েই তিনি চাকরি ছেড়েছেন নতুন কোনো চ্যালেঞ্জ নেওয়ার আশায়। ১৯৯০ সালে থেকে এই দিনামো বুখারেস্তিই মুলতেসচুকে বিভিন্ন মেয়াদে পাঁচবার কোচের দায়িত্ব দিয়েছে।

১৯৮৯–৯০ মৌসুমে মুলতেসচুর অধীনেই দিনামো বুখারেস্তি রোমানিয়ায় লিগ ও কাপ জিতেছিল। একই সঙ্গে তারা উয়েফা কাপ উইনার্স কাপের সেমিফাইনালে জায়গা করে নিয়েছিল। পরে তারা তৃতীয় স্থান অর্জন করে। যদিও মৌসুমের মাঝপথেই বিদায় নিতে হয়েছিল তাঁকে। মজার ব্যাপার হচ্ছে, মুলতেসচুর কখনোই দিনামো বুখারেস্তিতে পুরো মৌসুম দায়িত্ব পালন করতে পারেননি।

default-image

কোচিং ক্যারিয়ারের প্রায় পুরোটাই তিনি রোমানিয়ায় কাটিয়েছেন। বড় কোনো সাফল্য তাঁর তেমন নেই। তবে ১৯৯৪ সালের আগে তুরস্কের ক্লাব সামসুনস্পোরের হয়ে বলকান কাপ জিতেছিলেন। নব্বইয়ের দশকের শুরুর দিকে বলকান অঞ্চলের দেশ তুরস্ক, সাবেক যুগোস্লাভিয়া, আলবেনিয়া, বুলগেরিয়া, গ্রিস ও রোমানিয়ার ক্লাবগুলোকে নিয়ে এই বলকান কাপ আয়োজিত হতো। সামসুনস্পোরের হয়ে চার মৌসুম দায়িত্ব পালন করেছিলেন। শেষ মৌসুমে এসে তিনি সাফল্যের মুখ দেখেন। নিজের দেশে তাঁকে ডাকা হতো ‘স্মুরদুল’ নামে। রোমানিয়ায় ‘স্মুরদুল’ হচ্ছে তাঁদের জরুরি সেবার নাম। কোনো ক্লাব বিপদে পড়লেই ডাক পড়ত মুলতেসচুরের। তিনি দায়িত্ব নিয়ে তাদের বিপদ থেকে উদ্ধার করতেন। বেশির ভাগ সময়ই অবনমন থেকে ক্লাবকে বাঁচানোর কাজ করতে হয়েছে এই কোচকে।

এক সময় রোমানিয়া জাতীয় দলের হয়ে খেলেছেন মুলতেসচু। দেশের জার্সিতে খেলেছেন ১৬ ম্যাচ। ক্লাব ক্যারিয়ারে ৪৫০ ম্যাচ খেলেছেন বিভিন্ন ক্লাবের হয়ে। ১৯৭১ সালে জাতীয় দলের জার্সিতে অভিষেক হয় তাঁর। তিনবার নিজ ক্লাবের হয়ে জিতেছেন রোমানিয়ান লিগ। ১৯৮২ ও ১৯৮৪ সালে জিতেছেন রোমানিয়ান কাপও।

ফুটবল থেকে আরও পড়ুন
মন্তব্য করুন