default-image

রিয়াল মাদ্রিদের দায়িত্ব নেওয়ার আগে নাপোলির দায়িত্বে ছিলেন তিন বছর। কুলিবালির উত্থান তাঁর হাত ধরেই। বেনিতেজের ধারণা, ইতালিয়ান সিরি আ-তে কুলিবালি যতটা প্রাধান্য বিস্তার করে খেলেছেন, ইংলিশ প্রিমিয়ার লিগে সেটা পারবেন না। গতিময় ফুটবলের জন্য বিখ্যাত ইংলিশ লিগে নাকি কুলিবালির দুর্বলতা চোখে পড়বে।

ইংলিশ সংবাদমাধ্যম দ্য অ্যাথলেটিককে বেনিতেজ বলেছেন, ‘ওর মনোযোগে আরও উন্নতি করতে হবে। ওর মাঝেমধ্যে মনোযোগ সরে যায়। মাঝেমধ্যে ও অতি আত্মবিশ্বাসী হয়ে ওঠে। কিন্তু নাপোলিতে ও খুব গুরুত্বপূর্ণ একজন খেলোয়াড় ছিল। আমার পরিচিত আস্থাভাজন লোকেরা বলছেন, ইতালিতে এই সময়টায় সে সেরা সেন্টারব্যাক ছিল।’

default-image

নতুন লিগ ও নতুন দলে মানিয়ে নিতে যে কারও সময় লাগে। তবে চেলসি কোচ টমাস টুখেলের রক্ষণ কৌশল জানা আছে বলে বেনিতেজের ধারণা, সবকিছু ঠিক থাকলে কুলিবালির হয়তো অত সময় লাগবে না, ‘এই মৌসুমে প্রিমিয়ার লিগ খেলবে সে। আমার ধারণা টুখেল যেভাবে খেলায় তাতে ও ভালো করতে পারে। (এই মৌসুমেই চেলসি ছেড়ে রিয়াল মাদ্রিদে চলে যাওয়া) রুডিগারের সঙ্গে মিল আছে ওর—বল নিয়ে ভালো দৌড়াতে পারে, দুই পায়েই ভালো।’

কুলিবালি ও রুডিগারের মধ্যে একটি পার্থক্যও খেয়াল করেছেন বেনিতেজ। আর সে দিকটার কারণেই প্রিমিয়ার লিগে কতটা সফল হবেন কুলিবালি, এ নিয়ে কিছুটা দ্বিধায় আছেন চেলসিকে ২০১৩ ইউরোপা লিগ জেতানো এই কোচ, ‘সে কি একটু বেশিই ভদ্র (আগ্রাসী নয় বোঝাতে)? চেলসিতেই দেখা যাবে। আমি যেমনটা বললাম, ইতালিতে সে ভালো করেছে, কারণ সে খুব দ্রুতগতির। কিন্তু সে এখানে কতটা প্রভাব বিস্তার করতে পারবে, এ নিয়ে আমার সংশয় আছে।’

ইংলিশ প্রিমিয়ার লিগে ভালো করতে হলে আরেকটি দিকেও ভালো হতে হয়। যে কারণ দেখিয়ে রাফায়েল ভারান গত মৌসুমে ম্যানচেস্টার ইউনাইটেডে যোগ দেওয়ার সময় তাঁকে নিয়ে সন্দিহান ছিলেন ইউনাইটেডের কিংবদন্তি ডিফেন্ডার রিও ফার্ডিনান্ড। বেনিতেজ সে দিকটার কথা তুলে ধরেছেন, ‘বাতাসে ও (কুলিবালি) কখনোই অসাধারণ ছিল না। কিন্তু ইতালিতে এটা খুব একটা গুরুত্বপূর্ণ ছিল না এবং সে ওখানে ভালোই ছিল। কিন্তু প্রিমিয়ার লিগে কেমন করে সেটা নিয়ে কৌতূহল জাগছে। তবে সে সব সময় শিখতে আগ্রহী এবং অনুশীলন শেষেও সে আমার ও আমার স্টাফদের সঙ্গে হেড ও টেকনিকে উন্নতি করার জন্য কাজ করত।’

ফুটবল থেকে আরও পড়ুন
মন্তব্য করুন