default-image

ম্যানচেস্টার ইউনাইটেডের হয়ে খেলা না চ্যাম্পিয়নস লিগে খেলা—এই দুয়ের মধ্যে রোনালদো চ্যাম্পিয়নস লিগকেই গুরুত্ব দিচ্ছেন। ক্যারিয়ারের এ পর্যায়ে যে ক্লাব তাঁকে চ্যাম্পিয়নস লিগ খেলার সুযোগ করে দেবে, দরকার হলে বেতন কমিয়ে হলেও সেখানে খেলার পরিকল্পনা করছেন রোনালদো।

আগামী মৌসুমে চ্যাম্পিয়নস লিগে খেলছে এমন বড় ক্লাবগুলোর মধ্যে যেসব ক্লাবে এখনো খেলেননি, রোনালদোর সঙ্গে বলতে গেলে সেসব ক্লাবের নামই জড়াচ্ছে। বায়ার্ন মিউনিখ থেকে শুরু করে চেলসি, পিএসজি, এমনকি বার্সেলোনার নামও শোনা যাচ্ছে রোনালদোকে ঘিরে। আতলেতিকোই–বা পিছিয়ে থাকে কেন?

কয়েক দিন ধরে রোনালদোর সঙ্গে আতলেতিকোর নামও জড়াচ্ছে। রোনালদোর এজেন্ট জর্জে মেন্দেজ নাকি অন্যান্য ক্লাবের মতো দিয়েগো সিমিওনের আতলেতিকোর সঙ্গেও কথাবার্তা বলে রেখেছেন, যদি আতলেতিকো রোনালদোকে দলে টানে!

দিয়ারিও এএস ও মার্কার মতো স্প্যানিশ সংবাদমাধ্যমগুলো জানিয়েছে, রিয়াল মাদ্রিদের ইতিহাসের অন্যতম সফল খেলোয়াড় হওয়া সত্ত্বেও ক্যারিয়ারের এ পর্যায়ে আতলেতিকোর জার্সি গায়ে জড়াতে কোনো সমস্যা নেই তাঁর। তবে রোনালদোর মতো বেতনভোগী খেলোয়াড়কে আতলেতিকো দলে টানতে পারবে কি না, সেটা নিয়েই যত চিন্তা। দলে খেলোয়াড়দের সংখ্যা না কমালে, বেতনসীমা নাগালের মধ্যে না আনলে রোনালদোকে দলে টানতে পারবে না আতলেতিকো।

তবে এতকিছু সত্ত্বেও আতলেতিকোর নতুন পৃষ্ঠপোষক সিভিতাস রোনালদোর স্বপ্নে বিভোর। সম্প্রতি আতলেতিকোর মাঠ ওয়ান্দা মেত্রোপলিতানোর স্বত্ব কিনে নিয়েছে সিভিতাস। আগামী ১০ বছরের জন্য আতলেতিকোর মাঠের নাম হচ্ছে সিভিতাস মেত্রোপলিতানো। সিভিতাসের সভাপতি আলেহান্দ্রো আয়ালা আতলেতিকোর বড় ভক্ত।

রোনালদোকে দলে টানার ব্যাপারে যে বেশ ভালোভাবেই চেষ্টা চালিয়ে যাচ্ছেন তিনি, সেটা বোঝা গেল তাঁর কথাতেই, ‘আমি আতলেতিকো মাদ্রিদের সমর্থক। তবে কারোর প্রতি আমার কোনো ক্ষোভ নেই। আমি আমার দলের জন্য সেরাটাই চাইব। আমার দলে আমি কেন ক্রিস্টিয়ানো রোনালদোকে চাইব না?’

ফুটবল থেকে আরও পড়ুন
মন্তব্য করুন