এমন জয়ের পরও উন্নতির জায়গা দেখছেন ইউনাইটেডের কোচ এরিক টেন হাগ। এর অবশ্য কারণও আছে। ৬ মিনিটে রাশফোর্ডের একক নৈপুণ্যের গোলে এগিয়ে যাওয়ার পর একটু যেন ছন্দহীন হয়ে পড়েছিল ইউনাইটেড। সে সময় বেশ কয়েকটি ভালো সুযোগও পায় নটিংহাম। শেষ পর্যন্ত অবশ্য তারা পেরে ওঠেনি। ৪৫ মিনিটে ইউনাইটেডের জার্সিতে প্রথম গোল করেন ডাচ ফরোয়ার্ড ভেগহোর্স্ট। আর ৮৯ মিনিটে দলের  তৃতীয় গোলটি করেন ফার্নান্দেজ।

ম্যাচ শেষে টেন হাগ বলেছেন, ‘দলের পারফরম্যান্স আমি খুশি। বলতে গেলে ৯০ মিনিটই ম্যাচটি আমরা নিয়ন্ত্রণ করেছি। তবে একটি মুহূর্ত ছিল, যেটা ম্যাচের চিত্র পাল্টে দিতে পারত। এ জায়গাতেই আমাদের উন্নতি করতে হবে। তবে সব মিলিয়ে আমরাই ভালো খেলেছি।’

৬ মিনিটে এগিয়ে যাওয়ার পরও অমন মুহূর্ত কেন এসেছিল—এর ব্যাখ্যা দিতে গিয়ে টেন হাগ বলেছেন, ‘তারা কৌশল বদলেছিল। আমরা সেটার সঙ্গে মানিয়ে নিতে পারিনি। এটা হতে পারে না। সেরা হতে হলে এসব জায়গায় আমাদের উন্নতি করতে হবে। অমন মুহূর্ত তৈরি হতে পারে না।’

নটিংহামের বিপক্ষে সেমিফাইনালের দ্বিতীয় লেগের ম্যাচটি নিজেদের মাঠে ১ ফেব্রুয়ারি খেলবে ইউনাইটেড। বড় কোনো অঘটন না ঘটলে সহজেই ফাইনালে ওঠার কথা টেন হাগের দলের। ফাইনালে উঠলে তারা প্রতিপক্ষ হিসেবে পাবে সাউদাম্পটন বা নিউক্যাসলকে।

শেষ পর্যন্ত যদি ‘আরও উন্নতি করে’ ইএফএল কাপের শিরোপা জেতে ইউনাইটেড, তাহলে ২০১৭ সালের পর এটাই হবে ওল্ড ট্রাফোর্ডের দলটির প্রথম কোনো ট্রফি ঘরে তোলা!