মাত্র ২৩ বছর বয়সেই একটি বিশ্বকাপ ঝুলিতে পুরেছেন এমবাপ্পে। সংবাদমাধ্যমের মতে, গত মে মাসে পিএসজির সঙ্গে এমবাপ্পে যে নতুন চুক্তি করেছেন, সেটি খেলাধুলার ইতিহাসেই সবচেয়ে দামি চুক্তি। এরপরই দলবদলের বাজারের তাঁর দাম হু–হু করে বাড়ছিল। বোঝাই যাচ্ছে, ফুটবলে এখনো অনেক কিছুই দেওয়ার আছে ফ্রান্সের হয়ে ২০১৮ রাশিয়া বিশ্বকাপ জেতা এই তারকার। আর সেজন্যই দামটা তো বেশ চড়াই হবে।

এত দিন সবাই এমন ভেবে নিলেও ফুটবলবিষয়ক ওয়েবসাইট ‘ট্রান্সফারমার্কেট’ জানাচ্ছে, ঘটেছে ঠিক উল্টো। ফুটবলের বিভিন্ন তথ্য–উপাত্ত ও দলবদলের হালনাগাদ খবর জানানো এই ওয়েবসাইটের হিসেবে এমবাপ্পে এখন আর সবচেয়ে দামি খেলোয়াড় নন। তাঁকে পেছনে ফেলেছেন ম্যানচেস্টার সিটির নরওয়েজীয় স্ট্রাইকার আর্লিং হলান্ড।

‘ট্রান্সফারমার্কেট’ বিশ্বের সবচেয়ে দামি খেলোয়াড়ের তালিকা হালনাগাদ করেছে। সে তালিকা অনুযায়ী, হলান্ডের দাম ১৫ কোটি ৬০ লাখ থেকে ১৭ কোটি ইউরোয় হয়েছে। নরওয়ের তারকা এই মৌসুমে ৬ কোটি ইউরোয় ম্যানচেস্টার সিটিতে যোগ দিয়ে দুর্দান্ত ফর্মে আছেন। ১৭ গোল করে চলতি মৌসুমে ইংলিশ প্রিমিয়ার লিগে এখন পর্যন্ত তিনি সর্বোচ্চ গোলদাতা, চ্যাম্পিয়নস লিগেও করেছেন আর ৫ গোল। আছে একাধিক হ্যাটট্রিকও।

এমবাপ্পের দাম আনুমানিক ১৭ কোটি ইউরো থেকে ১ কোটি ইউরো নেমে ১৬ কোটি ইউরোয় ঠেকেছে। পিএসজির সঙ্গে লোভনীয় অঙ্কের চুক্তির পরও তাঁর দাম কমার পেছনে সাম্প্রতিক সময়ে কিছু বিতর্কের হাত থাকতে পারে। পিএসজিতে নেইমারের সঙ্গে এমবাপ্পের সম্পর্কটা বেশ শীতল। মাঝেমধ্যেই দুই তারকার মধ্যে ঝামেলার খবর পাওয়া যায় সংবাদমাধ্যমে। তবে এমবাপ্পের হাতে এখনো সময় আছে। বিশ্লেষকেরা মনে করেন, নিজের পারফরম্যান্স দিয়ে এমবাপ্পে তাঁর দাম ২০ কোটি ইউরোয় নিয়ে যেতে পারবেন।

ট্রান্সফারমার্কেট এই তালিকা তৈরি শুরু করার পর এবারই প্রথম ইংলিশ প্রিমিয়ার লিগের কোনো খেলোয়াড় শীর্ষে উঠে এলেন। শীর্ষ ১০ জনের তালিকায় ইংলিশ প্রিমিয়ার লিগের খেলোয়াড় আছেন চারজন। এখান থেকে বুঝে নেওয়া যায়, ইংলিশ প্রিমিয়ার লিগে ক্লাবগুলোর আর্থিক শক্তি। শীর্ষ দশে স্পেনের লা লিগার খেলোয়াড় আছেন দুজন—১২ কোটি ইউরো দাম নিয়ে তালিকার তিনে রিয়াল মাদ্রিদ উইঙ্গার ভিনিয়সুস জুনিয়র।

বার্সেলোনা মিডফিল্ডার পেদ্রি ৯ কোটি ইউরো দাম নিয়ে ছয়ে। ফ্রান্সের লিগ ‘আঁ’ থেকে আছেন শুধু এমবাপ্পে। জার্মানির বুন্দেসলিগা থেকে আছেন দুজন—৯ কোটি ইউরো দাম নিয়ে পাঁচে বরুসিয়া ডর্টমুন্ড মিডফিল্ডার জুড বেলিংহাম, বায়ার্ন মিডফিল্ডার জামাল মুসিয়েলা ৮ কোটি ইউরো দাম নিয়ে দশে।