গত ২৯ অক্টোবর বার্সেলোনার বিপক্ষে ম্যাচে পায়ে চোট পান ভ্যালেন্সিয়া স্ট্রাইকার কাভানি। কাতার বিশ্বকাপে কাভানির খেলার সম্ভাবনা নিয়ে তখন শঙ্কা তৈরি হয়েছিল। কিন্তু সুস্থ হয়ে ওঠার পথে থাকায় তাঁকে দলে টেনেছেন উরুগুয়ে কোচ আলোনসো। বার্সেলোনা ডিফেন্ডার রোনালদ আরাউহোও ডান পায়ের ঊরুতে চোট পেয়েছেন।

এখনো পুরোপুরি সুস্থ হতে না পারলেও তাঁকে নিয়েই কাতার বিশ্বকাপে যাবে উরুগুয়ে।
এ ছাড়া ম্যানচেস্টার ইউনাইটেডের ২০ বছর বয়সী উইঙ্গার ফাকুন্দো পেলেস্ত্রিকেও সুযোগ দেওয়া হয়েছে উরুগুয়ের বিশ্বকাপ দলে। ইউনাইটেডের হয়ে প্রতিযোগিতামূলক ম্যাচে এখনো অভিষেক ঘটেনি পেলেস্ত্রির।

ইংলিশ প্রিমিয়ার লিগ থেকে আরও দুজন খেলোয়াড়কে রেখেছেন আলোনসো। লিভারপুল স্ট্রাইকার দারউইন নুনিয়েজ ও টটেনহাম মিডফিল্ডার রদ্রিগো বেনতাঙ্কুর। বিশ্বকাপে ‘এইচ’ গ্রুপে ঘানা, পর্তুগাল ও দক্ষিণ কোরিয়ার মুখোমুখি হবে উরুগুয়ে। ২৪ নভেম্বর দক্ষিণ কোরিয়ার মুখোমুখি হয়ে কাতার বিশ্বকাপ শুরু করবে দুবারের বিশ্ব চ্যাম্পিয়নরা।

উরুগুয়ের বিশ্বকাপ দল:

গোলকিপার: ফার্নান্দো মুসলেরা, সের্হিও রোচেট ও সেবাস্তিয়ান রোসা।
ডিফেন্ডার: ডিয়েগো গোডিন, হোসে মারিয়া হিমিনেজ, সেবাস্তিয়ান কোতেস, মার্টিন ক্যাসেরেস, রোনালদ আরাউহো, ম্যাতিয়াস ভিনা, ম্যাথিয়াস অলিভেরা, গুইলার্মো ভ্যারেলা ও হোসে রদ্রিগেজ।

মিডফিল্ডার: ম্যাথিয়াস ভেচিনো, রদ্রিগো বেনতাঙ্কুর, ফেদে ভালভার্দে, লুকাস তোরেইরা, ম্যানুয়েল উগার্তো, ফাকুন্দো পেলেস্ত্রি, নিকোলাস দে লা ক্রুজ, জর্জিয়ান আরাসাকেতা, অগাস্তিন ক্যানোবিও ও ফাকুন্দো তোরেস।

ফরোয়ার্ড: দারউইন নুনিয়েজ, লুইস সুয়ারেজ, এডিনসন কাভানি ও ম্যাক্সিমিলিয়ানো গোমেজ।