বিমানের বিজনেস ক্লাসেরই যাত্রী ছিলেন আগুয়েরো। কিন্তু পুরো বিমান বোঝাই ছিল ব্রাজিলের সমর্থকে। তাঁরা নেচেছেন, গেয়েছেন। নানা রকমের বাদ্যযন্ত্র বাজিয়ে গান করেছেন। গোটা বিমানযাত্রাতেই জয়ধ্বনি দিয়েছেন ব্রাজিলকে নিয়ে। ওই সময় বিজনেস ক্লাসের আরামদায়ক আসনে বসেও আগুয়েরোর কান হয়েছে ঝালাপালা। নিজের অবস্থা নিয়ে রসিকতা করেই টুইটারে তা পোস্ট করেছেন। তবে পুরো বিষয়টিই যে তিনি উপভোগ করছেন, সেটি ভিডিওতে তাঁর ঈষৎ হাসিমুখ দেখেই বোঝা গেছে।

হৃদ্‌রোগে আক্রান্ত হয়ে শেষ হয়ে গেছে মেসি-দি মারিয়াদের একসময়ের সতীর্থ আগুয়েরোর ফুটবল ক্যারিয়ার। অথচ অনেক আশা নিয়েই ম্যানচেস্টার সিটিতে দীর্ঘ সময় কাটানোর পর বার্সেলোনায় যোগ দিয়েছিলেন। গত বছরের ৩০ অক্টোবর তিনি বার্সেলোনার একটি ম্যাচে বুকে ব্যথা অনুভব করেছিলেন। পরে দেখা যায়, তিনি হৃদ্‌রোগে আক্রান্ত। এরপর অবসরই নিয়ে ফেলেন।

চার বছর আগে রাশিয়া বিশ্বকাপে আর্জেন্টিনা দলে ছিলেন আগুয়েরো। ফ্রান্সের বিপক্ষে দ্বিতীয় রাউন্ডের ম্যাচে আর্জেন্টিনার ৪-৩ ব্যবধানে হেরে যাওয়া ম্যাচে ১টি গোলও করেছিলেন। ২০০৬ সালে আর্জেন্টিনার জার্সিতে অভিষেকের পর খেলেছেন ১০১টি আন্তর্জাতিক ম্যাচ। বিশ্বকাপ খেলেছেন তিনটি। ১২টি ম্যাচ খেলে তাঁর বিশ্বকাপ গোল ২টি।