তবে বিশ্বকাপ শুরুর আগের দুই দিন সতীর্থদের সঙ্গে অনুশীলন করেননি মেসি। একাকী হালকা অনুশীলন করেন। মূলত, তাতেই কিছুটা শঙ্কার কালো মেঘ জমেছিল।

পিএসজির হয়ে খেলার সময় ‘একিলিস টেন্ডনে’ সমস্যার কারণে এ মাসেই এক ম্যাচে মাঠের বাইরে ছিলেন সাতবারের ব্যালন ডি’অর জয়ী তারকা।

তাই মেসি অনুশীলনে না থাকায় আর্জেন্টিনার সমর্থকদের কপালে ভাঁজ পড়াটাই স্বাভাবিক। আর্জেন্টাইন টিম ম্যানেজমেন্ট মূলত মেসির ওপর বাড়তি চাপ দিতে চাচ্ছে না। সে জন্যই দুই দিন অনুশীলনে দলের সঙ্গে ছিলেন না মেসি।

কাতার বিশ্বকাপেই বিশ্বকাপ জেতার শেষ সুযোগ পাচ্ছেন মেসি। কারণ, ৩৫ বছর বয়সী মেসির এটাই যে শেষ বিশ্বকাপ, সেটা বিশ্বকাপের তাঁর কথাতেই স্পষ্ট করেছেন। শেষ পরীক্ষায় নিজেদের সেরাটা দিতে মরিয়া মেসি।

তবে সে ক্ষেত্রে চোট নিয়ে বাড়তি সতর্ক থাকতেই হবে তাঁকে। কারণ, এবারের বিশ্বকাপ হচ্ছে ক্লাব ফুটবলের মৌসুম চলাকালে। তাই টানা খেলার মধ্যে থাকায় খেলোয়াড়েরা কিছুটা হলেও ক্লান্ত। চোটে পড়ে বিশ্বকাপও শেষ হয়ে গেছে করিম বেনজেমা, সাদিও মানের মতো তারকাদের।

‘সি’ গ্রুপে আর্জেন্টিনার অন্য দুই প্রতিপক্ষ মেক্সিকো ও পোল্যান্ড।