এরপর অবশ্য গোলের জন্য লম্বা সময় অপেক্ষা করতে হয়েছে রিয়ালকে। কার্লো আনচেলত্তির দলের দ্বিতীয় গোলটি এসেছে ৭৫ মিনিটে। এবার রদ্রিগোর অসাধারণ এক পাস থেকে গোলটি করেছেন দুদিন আগে ব্যালন ডি'অর জেতা করিম বেনজেমা।

এর আগেই অবশ্য গোল পেয়ে যেতে পারত রিয়াল। ডেভিড আলাবা ২৬ মিনিটে এলচের জালে বল পাঠিয়েছিলেন। কিন্তু ভিএআর গোলটি বাতিল করে দেয়। ৬১ মিনিটেই একই ভাগ্য মেনে নিতে হয় রিয়ালকে। এবার এলচের জালে বল পাঠিয়েছিলেন বেনেজেমা। কিন্তু ভিএআর সেটিকে অফসাইড বলে গোল বাতিল করে দেয়।

এর ১৪ মিনিট পর অবশ্য ভিএআরের দরকার হয়নি। বক্সের মাঝ থেকে বেনজেমার ডান পায়ের শটটি নিখুঁতভাবেই লক্ষ্য ভেদ করে। এরপর ৮৯ মিনিটে ব্যবধান ৩–০ করেন আসেনসিও। বেনজেমার মতো তিনিও রদ্রিগোর পাসে বক্সের মাঝ থেকে ডান পায়ের তীব্র শটে গোলটি করেছেন।

এই জয়ে শীর্ষে থাকা রিয়াল মাদ্রিদের পয়েন্ট এখন ১০ ম্যাচে ২৮। এক ম্যাচ কম খেলে  ২২ পয়েন্ট নিয়ে দ্বিতীয় স্থানে আছে রিয়ালের চিরপ্রতিদ্বন্দ্বী বার্সেলোনা। তৃতীয় স্থানে থাকা রিয়াল সোসিয়েদাদের পয়েন্ট ১০ ম্যাচে ২২। ২০ পয়েন্ট নিয়ে আতলেতিকো মাদ্রিদ আছে চতুর্থ স্থানে।