সেই সময় পাকিস্তানের বিভিন্ন সংবাদমাধ্যমে খবর এসেছিল, কোনো একটি বিষয় নিয়ে ওয়াকারের সঙ্গে ঝগড়া হয়েছিল তাঁর। একপর্যায়ে নাকি দুজনের হাতাহাতিও হয়েছিল। সম্প্রতি এ বিষয়ে পাকিস্তানের সামা টিভিকে শেহজাদ বলেছেন, এমন কোনো ঘটনা ঘটেইনি।

default-image

সামা টিভিকে শেহজাদ বলেন, ‘আমি আমার বিষয়ে অনেক কিছু শুনেছি। আমাকে সংবাদমাধ্যমের সেই সব খবরে কান না দিয়ে শুধু ক্রিকেটে মনোযোগ দিতে বলা হয়েছিল। আমারও শুধু একটাই লক্ষ্য ছিল—দেশকে গর্বিত করা। আমি শৃঙ্খলা ভঙ্গ করার মতো কোনো ঘটনা ঘটাইনি।’

একটা সময়ে প্রতিশ্রুতিশীল একজন ব্যাটসম্যান হিসেবেই আবির্ভাব হয়েছিল শেহজাদের। কিন্তু তাঁর বিরুদ্ধে অভিযোগ ছিল, দলের শৃঙ্খলা ভঙ্গ করার। শেহজাদ অবশ্য বলছেন, ‘আমার সম্পর্কে কিছুই গোপন রাখা হয়নি। সংবাদমাধ্যমই এটা নিশ্চিত করেছে। আমাকে নিয়ে এমনও শিরোনাম হয়েছে যে আমি ওয়াকার ইউনিসকে মেরেছি, তিনিও আমাকে মেরেছেন।’

শেহজাদ এরপর যোগ করেন, ‘আমি যদি কখনো ড্রেসিংরুমের পরিবেশ নষ্ট করে থাকি, মানুষের সেটা জানা উচিত। ড্রেসিংরুমে সব সময়ই আমার সতেজ ও সরব উপস্থিতি ছিল। আমি সব সময়ই দলকে সবচেয়ে বেশি গুরুত্ব দিয়েছি। আপনি শিরোনাম তৈরি করবেন কি না, সেটা আপনার ওপরই নির্ভর করে।’

খেলা থেকে আরও পড়ুন
মন্তব্য করুন