বিজ্ঞাপন
বিজ্ঞাপন

ফেডারেশনে গিয়ে দলবদল করলে আবারও মেরিনার্স ‘ঝামেলা’ করতে পারে, এই আশঙ্কাতেই নাকি ওই রেস্তোরাঁয় বসে দলবদলের আনুষ্ঠানিকতা সেরেছে মোহামেডান। যদিও এই অভিযোগ অস্বীকার করলেন মোহামেডানের হকি দলের ম্যানেজার আরিফুল হক প্রিন্স, ‘ আমরা কোনো ঝামেলার ভয়ে সেখানে দলবদল করিনি। আসলে আমাদের এক ক্লাব অফিশিয়ালের রেস্তোরাঁয় আমন্ত্রণ ছিল খেলোয়াড়দের। সেখানেই কাল দলবদলের প্রক্রিয়া সেরে ফেলেছি।’

মোহামেডান বিশেষ ব্যবস্থায় কাল প্রথম দফায় নিজেদের খেলোয়াড়দের দলবদলের কাজ শেষ করেছে। প্রথম ধাপে মোহামেডানের হয়ে নাম লিখিয়েছেন আশরাফুল ইসলাম, মইনুল ইসলাম কৌশিক, সারোয়ার হোসেন, অসীম কুমার গোপ, প্রিন্স লাল সামুন্দ ও সারোয়ার মোরশেদ শাওন। আগামীকাল ফেডারেশনে গিয়ে তারা বাকি খেলোয়াড়দের দলবদলের আনুষ্ঠানিকতা সারবে।

শাওনকে এবার নিজেদের খেলোয়াড় হিসেবেই দাবি করলেন প্রিন্স, ‘দলবদলের নিয়ম অনুসারে কোনো খেলোয়াড় যে ক্লাবের হাতে টোকেন তুলে দেবে, সে ওই ক্লাবের হয়েই খেলবে। ওকে নিয়ে আর কোনো ঝামেলা নেই। শাওন মোহামেডানের জার্সিতেই খেলবে।’

হকি ফেডারেশনের প্রতিনিধি হিসেবে দলবদলে উপস্থিত ছিলেন ফেডারেশনের সদস্য জামিল আবদুর নাসের, জাফরুল আহসান বাবুল। মোহামেডানের ক্লাব কর্মকর্তাদের মধ্যে উপস্থিত ছিলেন হকি কমিটির চেয়ারম্যান মনজুর আলম, সাধারণ সম্পাদক আবু শাহিন ও ম্যানেজার আরিফুল হক প্রিন্স।

অন্য খেলা থেকে আরও পড়ুন
মন্তব্য করুন
বিজ্ঞাপন
বিজ্ঞাপন