প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা উদ্বোধন ঘোষণা করেন বঙ্গবন্ধু গেমসের।
প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা উদ্বোধন ঘোষণা করেন বঙ্গবন্ধু গেমসের। ছবি: প্রথম আলো

এক সপ্তাহের জন্য সারা দেশে লকডাউন দেওয়া হচ্ছে। আগামী সোমবার থেকে সাত দিনের লকডাউন বলবৎ থাকবে বলে আজ গণমাধ্যমকে জানিয়েছেন আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক ওবায়দুল কাদের। করোনাভাইরাস পরিস্থিতির অবনতির কারণে সরকারের এই সিদ্ধান্ত। এই লকডাউনে যদি সবকিছুই বন্ধ থাকে তাহলে চলমান বঙ্গবন্ধু নবম বাংলাদেশ গেমসও সোমবার থেকে বন্ধ হয়ে যাওয়ার কথা।

তবে বাংলাদেশ অলিম্পিক অ্যাসোসিয়েশনের (বিওএ) মহাসচিব সৈয়দ শাহেদ রেজা এখনই সেটা বলতে রাজি নন। তিনি তাকিয়ে আছেন সরকারি নির্দেশনার দিকে।

default-image

সরকারি নির্দেশ আসার আগপর্যন্ত সৈয়দ শাহেদ রেজা আশাবাদী থাকতে চান। আজ তিনি প্রথম আলোকে বলেন, সরকার এখন তো লকডাউন দেয়নি, দেওয়ার চিন্তাভাবনা করছে।

বিজ্ঞাপন

কিন্তু লকডাউনের সিদ্ধান্তের কথা সরকার জানিয়ে দিয়েছে। বিষয়টি মনে করে দিলে বিওএর মহাসচিব বলেন, ‘লকডাউন দেওয়া হচ্ছে, আর দেওয়ার মধ্যে পার্থক্য রয়েছে। লকডাউন দিলে দেবে। আমাদের ৭০ ভাগ খেলা তত দিনে শেষ হয়ে যাবে।’

default-image

সোমবার থেকে লকডাউন দিলে খেলা হবে আর শুধু আগামীকাল। সে ক্ষেত্রে ১-১০ এপ্রিল অনুষ্ঠেয় গেমসে ৪ এপ্রিলের মধ্যে ৭০ ভাগ খেলা কীভাবে শেষ হয় বোধগম্য নয়। বিওএ মহাসচিবের দেওয়া এই তথ্য নিয়ে প্রশ্ন রয়েছে

লকডাউন দিলে গেমস নিয়ে কী করা যায়, সেই চিন্তাভাবনা করা হবে জানিয়ে সৈয়দ সৈয়দ শাহেদ রেজা যোগ করেন, ‘লকডাউন দিলে গেমসের ব্যাপারে সরকারের একটা দিকনির্দেশনা নিশ্চয়ই আসবে। সরকার গেমস বন্ধ করতে বললে করা হবে। তবে লকডাউন না হওয়া পর্যন্ত গেমস চলবে। আমরা আগে দেখি সরকারই কী বলে বিওএকে।’

default-image

লকডাউনের ধরন নিয়ে তাঁর রয়েছে প্রশ্ন, ‘সরকার লকডাউন দোকানপাটের জন্য দিচ্ছে না কিসের জন্য দিচ্ছে সেটা আমরা এখনো জানি না। আমাদের তো আর বড় জমায়েত ওভাবে নেই। বড় জমায়েত শেষ হয়ে গেছে উদ্বোধনী অনুষ্ঠানেই। এখন গেমসের খেলাই শুধু হচ্ছে। মেডিকেল টিম কাজ করছে। প্রয়োজনে ৭ দিন পর গেমসের বাকি খেলাগুলো হতে পারে। দেখা যাক কী হয়।’

বিজ্ঞাপন
অন্য খেলা থেকে আরও পড়ুন
মন্তব্য করুন