দলের সবচেয়ে বড় ‘ম্যাচ উইনার’কে নিয়েই ভারতে যেতে চান এই অস্ট্রেলিয়ান কোচ।
চলতি বছরের মে মাসে ইংল্যান্ড ওয়ানডে ও টি-টোয়েন্টি দলের দায়িত্ব নেন মট। শিরোপার সঙ্গে ভালোই রসায়ন এ কোচের। অস্ট্রেলিয়ার নারী দলের হয়ে দুটি শিরোপা জিতেছেন। দায়িত্ব নেওয়ার পর ইংল্যান্ডের হয়েও শিরোপা জিতেছেন এই কোচ।

চলতি বছরে এ নিয়ে জিতেছেন দুটি শিরোপা (অস্ট্রেলিয়ার মেয়েদের নিয়ে নারী ওয়ানডে বিশ্বকাপ আর ইংল্যান্ডের হয়ে টি–টোয়েন্টি বিশ্বকাপ)। অবসর ভেঙে ফেরার বিষয়ে স্টোকসের সঙ্গে এখনো কথা বলেননি মট। তবে অবসর নেওয়ার আগে তাঁর সঙ্গে স্টোকসের যে আলোচনা হয়েছে, তাতেই ফেরার ইঙ্গিত খুঁজছেন মট, ‘স্টোকস যখন অবসর নেওয়ার কথা আমাকে বলেছে, আমি বলেছিলাম যেকোনো সিদ্ধান্তেই আমি তার পাশে আছি। সঙ্গে তাকে এটাও জানিয়েছিলাম, সে অবসর না নিলেও পারে, প্রয়োজনে কিছুদিন ওয়ানডে থেকে দূরে থাকতে পারে সে।’

ইংল্যান্ডের সাদা বলের কোচ মট তখনই স্টোকসকে জানিয়ে দিয়েছেন, চাইলে অবসর ভেঙে ফিরতে পারেন এই অলরাউন্ডার, ‘আমি তাকে বলেছি, তুমি যেকোনো সময়ে অবসর ভেঙে ফিরতে পারো। যদিও এটা তার সিদ্ধান্ত। আগামী বছর ওয়ানডে বিশ্বকাপের বলে স্বাভাবিকভাবেই আমরা তেমন টি-টোয়েন্টি খেলব না। আমরা তাকে পেলে দারুণ কিছুই হবে।’

স্টোকসের অবসরে ভেঙে ওয়ানডে ক্রিকেটে ফেরা নিয়ে কথা বলেছেন ইংল্যান্ড দলের ব্যবস্থাপনা পরিচালক রব কি। যদিও তাঁর কথায় স্পষ্ট কোনো ইঙ্গিত পাওয়া যায়নি। স্কাই স্পোর্টসকে রব কি বলেছেন, ‘কোনো কিছুই চিরস্থায়ী নয়। কে জানে, কী হবে। স্টোকস টেস্ট ক্রিকেট নিয়ে ভাববে, আমি চাই না সে অন্য কিছু নিয়ে এ মুহূর্তে ভাবুক।’