বিজ্ঞাপন
বিজ্ঞাপন

স্বাধীনতা–পরবর্তী সময়ে ক্রীড়া ফেডারেশনগুলো আহ্বায়ক কমিটি দিয়েই চলত। ১৯৯৬ সালে আওয়ামী লীগ সরকার গঠনের পর ক্রীড়া ফেডারেশনগুলোতে নির্বাচনের ধারা চালু করে। ১৯৯৮ থেকে ক্রীড়াঙ্গনে নির্বাচনের প্রথা শুরু। গত প্রায় দুই যুগে অনেক ফেডারেশনই নির্বাচনে অভ্যস্ত হয়ে উঠলেও ব্যতিক্রম টেনিস।

২০১৬ সালে টেনিস ফেডারেশনে নির্বাচনের উদ্যোগ নিয়েছিল জাতীয় ক্রীড়া পরিষদ (এনএসসি)। কিন্তু কাউন্সিলর আবু সালেহ মোহাম্মদ ফজলে রাব্বির করা এক মামলায় নির্বাচন স্থগিত হয়ে যায়। গত মাসে অবশ্য মামলা প্রত্যাহার করে নিয়েছেন তিনি।

টেনিস ফেডারেশনের নির্বাচনবিমুখ আচরণে অসন্তোষ প্রকাশ করেছেন ক্রীড়া প্রতিমন্ত্রীও। গতকাল প্রথম আলোকে তিনি বলেন, ‘গত বছর শাহ আলম সরদারকে (এনএসসির পরিচালক) প্রধান করে টেনিসের জন্য নির্বাচন কমিশন গঠন করে দিয়েছি। কিন্তু যখনই নির্বাচনের উদ্যোগ নেওয়া হয়, ফেডারেশন কোনো না কোনো সমস্যা তৈরি করে।’ মন্ত্রী জানান, কাউন্সিলরদের তালিকা চেয়ে অন্তত পাঁচবার চিঠি পাঠানো হয়েছে ফেডারেশনে। তবু এখন পর্যন্ত ভোটার তালিকা পাননি তাঁরা। জাহিদ আহসান বলেন, ‘আমার মনে হয় ফেডারেশনে যাঁরা আছেন, তাঁদের নির্বাচনের ব্যাপারে আগ্রহ কম। তাঁরা আমাদের সহযোগিতা করছেন না।’ ফেডারেশনের সহযোগিতা না করলে বর্তমান আহ্বায়ক কমিটি ভেঙে দেওয়ার কথাও বলেন তিনি, ‘তাঁরা এমন করতে থাকলে কমিটি ভেঙে দেওয়া ছাড়া আমাদের আর কোনো গত্যন্তর থাকবে না।’

টেনিসের সর্বশেষ পাঁচ সাধারণ সম্পাদকের মধ্যে একমাত্র ইশতিয়াক আহমেদই ছিলেন সংগঠক। বাকিদের মধে৵ বেশির ভাগই
ছিলেন সরকারি আমলা। সর্বশেষ ২০১৯ সালে সাধারণ সম্পাদক করা হয় মাসুদ করিমকে। তিনি ছিলেন এনএসসির সচিব। বর্তমানে তিনি শ্রম ও কর্মসংস্থান মন্ত্রণালয়ের অতিরিক্ত সচিবের দায়িত্বে আছেন।

ক্রীড়াঙ্গনের বাইরের লোকদের ফেডারেশনের দায়িত্ব দেওয়ায় বর্তমান কমিটির অনেকে ক্ষুব্ধ। নাম প্রকাশ না করার শর্তে বর্তমান কমিটির এক সদস্য বলেন, সরকারি কর্মকর্তারা মনে করেন, এটা তাঁদের বাড়তি দায়িত্ব। খেলার উন্নতি নিয়ে ভাবেন না তাঁরা। সেটির নেতিবাচক প্রভাব পড়ছে কোর্টে।

রমনার টেনিস কোর্ট এখন বেশির ভাগ সময় ফাঁকাই পড়ে থাকে। গত ছয় বছরে মাত্র দুবার হয়েছে জাতীয় চ্যাম্পিয়নশিপ। আন্তর্জাতিক অঙ্গনেও নেই সাফল্য। ১৯৯৫ সালে মাদ্রাজ এসএ গেমসে ব্রোঞ্জ জেতার পর টেনিসে বাংলাদেশের আর কোনো অর্জন নেই। এশিয়া-ওশেনিয়া অঞ্চলের ডেভিস কাপে উল্টো হয়েছে অবনমন।

টেনিস থেকে আরও পড়ুন
মন্তব্য করুন
বিজ্ঞাপন
বিজ্ঞাপন