বিজ্ঞাপন
বিজ্ঞাপন

ইনস্টাগ্রামে কাল একটি পোস্ট করেন ৩২ বছর বয়সী এই খেলোয়াড়। সে পোস্ট দেখলে বোঝা যায়, বারবার পজিটিভ হওয়ায় পেইর কতটা বিরক্ত, ‘আমার নাম বেনোইত পেইর। ২৫০তম বারের মতো আমি কোভিড পজিটিভ হয়েছি। সত্যি বলতে কোভিডের সঙ্গে আর কুলিয়ে উঠতে পারছি না। কেমন আছি? কোভিডের কারণে নাক বেয়ে পানি পড়ছে। দুনিয়ার নানা জায়গার হোটেলে কোয়ারেন্টিন করতে করতে আমি মানসিকভাবে আর ভালো নেই। গত বছর খুব কঠিন ছিল। এ বছর ঠিক একইভাবে সব শুরু হলো!’

পেইর টিকা নিয়েছেন এবং টিকা নেওয়ার পক্ষে তাঁর অবস্থান ‘শতভাগ’। পেইর যোগ করেন, ‘জানিয়ে রাখছি, টিকা নেওয়ার পক্ষে শতভাগ অবস্থান আমার। কিন্তু কোভিডের আগে পরিস্থিতি যেমন ছিল, আসুন সেভাবে জীবন শুরু করি। তা ছাড়া এসবের কোনো মানে নেই।’

মেলবোর্নে আগামী ১৭ জানুয়ারি থেকে শুরু হওয়ার কথা অস্ট্রেলিয়ান ওপেন। আগামী ১০ দিন তাঁকে আইসোলেশনে থাকতে হবে। প্রথম খেলোয়াড় হিসেবে অফিশিয়ালি দ্বিতীয়বারের মতো পজিটিভ হলেন পেইর। অস্ট্রেলিয়ান ওপেনে খেলতে এ সপ্তাহে মেলবোর্নে পা রাখা খেলোয়াড়দের মধ্যে দ্বিতীয় খেলোয়াড় হিসেবে পজিটিভ হলেন তিনি। এর আগে ডেনিস শাপোভালোভ পজিটিভ হন।

২০২০ ইউএস ওপেনের আগে কোভিড-১৯ পজিটিভ হন পেইর। গ্র্যান্ড স্লাম টুর্নামেন্টে তিনি খেলতে পারেননি। এরপর হামবুর্গে এটিপি টুর্নামেন্টের দুই সপ্তাহ আগে আবারও পজিটিভ হন পেইর।

তবে বেশ আগেই পজিটিভ হওয়ায় এবং হাতে সময় থাকায় হামবুর্গে খেলার সুযোগ পেয়েছিলেন। রোঁলা গাঁরোয় ফ্রেঞ্চ ওপেনে অবশ্য খেলতে তাঁর কোনো সমস্যা হয়নি। এ মৌসুমে অস্ট্রেলিয়ান ওপেন শুরুর আগে কঠোর কোয়ারেন্টিনে থাকা খেলোয়াড়দের একজনও পেইর।

অনুশীলন তো দূরের কথা হোটেল থেকেই বের হতে পারেননি তিনি। সাম্প্রতিক সময়ে রাফায়েল নাদাল, আন্দ্রে রুবলেভ ও বেলিন্দা বেনেচিচও কোভিড পজিটিভ হন।

টেনিস থেকে আরও পড়ুন
মন্তব্য করুন
বিজ্ঞাপন
বিজ্ঞাপন