বিজ্ঞাপন
বিজ্ঞাপন

ভালোভাবে কাজ শেষ করার জন্য বিভিন্ন উদ্যোগ গ্রহণ করার দক্ষতা থাকতে হবে। মনে রাখতে হবে, নিজ থেকে উদ্যোগ নেওয়ার ক্ষমতা পেশাদারত্ব বৃদ্ধি করতে গুরুত্বপূর্ণ ভূমিকা রাখে। এর পাশাপাশি ক্লায়েন্টের কাছে কাজ জমা দেওয়ার আগে নিয়মিত কাজের অগ্রগতি পর্যালোচনা করতে হবে।

বার্তা বা ই–মেইলের উত্তর সময়মতো পাঠানোও পেশাদারত্বের অন্যতম গুণ। এ জন্য কাজ শুরুর আগেই ক্লায়েন্টকে জানিয়ে রাখবেন, কোন সময়ে আপনাকে অনলাইনে পাওয়া যাবে। ফলে ক্লায়েন্টদের পাঠানো বার্তা এবং ই–মেইলের উত্তর আপনার পক্ষে দেওয়া সহজ হবে। তবে মার্কেটপ্লেসে কাজ করার সময় ক্লায়েন্ট বার্তা বা ই–মেইল পাঠালে সঙ্গে সঙ্গে বিস্তারিত তথ্য জানানোর দরকার নেই। প্রথমে ক্লায়েন্ট কোন তথ্যগুলো জানতে চাচ্ছেন, সে বিষয়ে ভালোভাবে জানার পর ই–মেইলের উত্তর দিতে হবে। প্রয়োজনে আপনি সময়ও নিতে পারেন। এ ক্ষেত্রে আপনি লিখতে পারেন, ‘আমি তোমার ই–মেইল পেয়েছি এবং এ বিষয়ে আমি পরে (সুবিধাজনক সময়) তোমার প্রশ্নের বিস্তারিত উত্তর দেব।’

কাজে পেশাদারত্ব আনতে হলে কখনোই আবেগপ্রবণ হওয়া যাবে না। এমনকি আবেগপ্রবণ হয়ে কোনো সিদ্ধান্তও গ্রহণ করবেন না। ফ্রিল্যান্স মার্কেটপ্লেসে আমরা যাঁদের সঙ্গে কাজ করি, তাঁদের সঙ্গে আমাদের সামাজিক, সাংস্কৃতিক, ভৌগোলিক, ধর্মসহ বিভিন্ন বিষয়ে পার্থক্য রয়েছে। তাই কাজ করার সময় ক্লায়েন্টের কোনো কথা বা মন্তব্যে মনে কষ্ট পাওয়া যাবে না। এ ক্ষেত্রে ক্লায়েন্টের সঙ্গে বন্ধুত্বপূর্ণ সম্পর্ক তৈরি করলেও শুধু কাজ নিয়েই আলোচনা করতে হবে। এতে আপনার পেশাদারত্ব বৃদ্ধি পাবে।
চ্যালেঞ্জকে ইতিবাচকভাবে গ্রহণ করা শিখতে হবে। পেশাদারত্ব গড়ে তুলতে বিভিন্ন সমস্যা থেকে গঠনমূলক সমাধান খুঁজে বের করতে হবে। কাজ করার সময় যে কোনো সমস্যা সমাধানের জন্য নিজেকে গড়ে তুলতে হবে।

সঠিক পদ্ধতিতে যোগাযোগের দক্ষতা পেশাদারত্ব গড়ে তুলতে গুরুত্বপূর্ণ ভূমিকা রাখে। এ জন্য সঠিক সময়ে কাজের হালনাগাদ তথ্য নিজ থেকেই ক্লায়েন্টকে জানাতে হবে। ক্লায়েন্টের মিটিংয়েও সঠিক সময়ে অংশ নিতে হবে। কোনো কারণে মিটিংয়ে অংশ নিতে না পারলে ক্লায়েন্টকে আগেই জানাতে হবে। এমনকি নির্দিষ্ট সময়ে কাজ শেষ না হওয়ার আশঙ্কা থাকলে সে বিষয়েও ধারণা দিতে হবে ক্লায়েন্টকে। ফলে ক্লায়েন্টের সঙ্গে কাজ নিয়ে ভুল বোঝাবুঝি হবে না।

ক্লায়েন্টের সঙ্গে ভিডিও কলে কথা বলার সময় স্বচ্ছন্দ্যে এবং সাবলীলভাবে নিজের দক্ষতা এবং কাজের তথ্য তুলে ধরতে হবে। তবে এ সময় অবশ্যই ভালোমানের শব্দ নিশ্চিত করার পাশাপাশি আপনার পেছনের ছবি ভালো হতে হবে।

কাজ করার পর পারিশ্রমিক কম পেলে অবশ্যই মার্কেটপ্লেসের সহায়তা দলের সঙ্গে যোগাযোগ করতে হবে। অনেকে কাজ করার পর টাকা না পেলে মন খারাপ করেন বা অভিমানে যোগাযোগ বন্ধ করে দেন। কিন্তু এটি পেশাদারত্বের লক্ষণ নয়। আপনাকে যদি কেউ এক ডলারও কম পারিশ্রমিক দেয়, তাহলেও আপনাকে অভিযোগ করতে হবে। মার্কেটপ্লেসে অনেক সময় দেখা যায়, নির্দিষ্ট সময়ে কাজ জমা দিলেও কাজ ভালো হয়নি বলে জানায় ক্লায়েন্ট। কেউ আবার বলেন, বর্তমানে কাজটির প্রয়োজন না থাকায় আপনাকে পারিশ্রমিক দেওয়া হবে না। তবে এতে চিন্তার কিছু নেই, ক্লায়েন্টের নির্দেশমতো কাজ শেষ করায় আপনি অবশ্যই পারিশ্রমিক দাবি করতে পারেন। এ জন্য প্রথমে ক্লায়েন্টকে ভালোভাবে বোঝানোর চেষ্টা করতে হবে। যদি তিনি রাজি না হন তবে খারাপ ব্যবহার করা যাবে না। মার্কেটপ্লেসের সহায়তা দলের সঙ্গে যোগাযোগ করতে হবে।

লেখক: আপওয়ার্ক টপ রেটেড প্লাস ফ্রিল্যান্সার

পরের পর্ব: দীর্ঘমেয়াদি ক্লায়েন্ট তৈরি করবেন যেভাবে

টিপস থেকে আরও পড়ুন
মন্তব্য করুন
বিজ্ঞাপন
বিজ্ঞাপন