টিউরিং মূলত যুক্তরাষ্ট্রের বিভিন্ন প্রতিষ্ঠানের সঙ্গে চাকরিপ্রার্থী সফটওয়্যার প্রকৌশলীদের সংযোগ স্থাপনের কাজ করে থাকে। বর্তমানে দেড় শ দেশের ১৫ লাখের বেশি সফটওয়্যার প্রকৌশলী প্ল্যাটফর্মটি ব্যবহার করছেন। নিবন্ধন করলেই চাকরিপ্রার্থীদের যোগ্যতা কৃত্রিম বুদ্ধিমত্তা প্রযুক্তির সাহায্যে যাচাই করে প্ল্যাটফর্মটি। এরপর যোগ্যতা অনুযায়ী যুক্তরাষ্ট্রের বিভিন্ন প্রতিষ্ঠানের স্থায়ী অনলাইন কর্মী হিসেবে কাজের সুযোগ করে দেয়।

এক সংবাদ বিজ্ঞপ্তিতে টিউরিংয়ের সহপ্রতিষ্ঠাতা ও প্রধান নির্বাহী কর্মকর্তা জোনাথন সিদ্ধার্থ বলেন, ‘গত কয়েক দশকে সফটওয়্যার উন্নয়ন শিল্পে বাংলাদেশ তাৎপর্যপূর্ণ প্রবৃদ্ধি অর্জন করেছে। ফলে দেশে আন্তর্জাতিক মানের প্রকৌশলী গড়ে উঠেছে, যাঁদের স্থানীয় এবং বিশ্ববাজারের প্রযুক্তি খাতে অবদান রাখার সম্ভাবনা রয়েছে। টিউরিং বিশ্বজুড়ে মেধাবীদের সমান সুযোগ তৈরিতে কাজ করছে।’

টিউরিং প্ল্যাটফর্ম বিষয়ে বিস্তারিত জানা যাবে https://turing.com/ ঠিকানায়।

প্রযুক্তি থেকে আরও পড়ুন
মন্তব্য করুন