ট্রাষ্ট সম্পর্কে

ট্রাষ্ট সম্পর্কিত

প্রথম আলো সংবাদপত্রের চেয়ে একটু বেশি। প্রতিদিন কাগজ প্রকাশ, সারাক্ষণ অনলাইনে সজাগ ও সক্রিয় থাকার পরও, প্রথম আলো দেশ, সমাজ ও মানুষের প্রতি দায়বদ্ধতা থেকে করে থাকে নানা রকমের সামাজিক কাজ। দুস্থ মানুষের মুখে হাসি ফোটানো, দেশ থেকে অ্যাসিড-সন্ত্রাস কিংবা মাদকের অভিশাপ দূর করার মতো কাজে প্রথম আলো নিয়োজিত আছে প্রতিষ্ঠালগ্ন থেকেই। প্রথম আলো ট্রাস্ট প্রতিষ্ঠার মাধ্যমে এসব উদ্যোগ পেয়েছে আরও সংহত রূপ। ট্রাস্টের কার্যক্রম চলে বছরজুড়েই।

ট্রাস্টের গঠন

২০০৫ সালে প্রথম আলো সম্পাদক মতিউর রহমান র‌্যামন ম্যাগসাইসাই পুরস্কার লাভ করেন। পুরস্কারলব্ধ ৩৩ লাখ টাকা সমান তিনটি ভাগে অ্যাসিডদগ্ধ নারীদের জন্য, মাদকবিরোধী আন্দোলন ও নির্যাতিত সাংবাদিক সহায়তা তহবিলে বরাদ্দ দিলে প্রথম আলোর সামাজিক কার্যক্রম শুরু হয়। প্রথম আলোর কর্মীরাও তাঁদের বেতন থেকে অনুদান দিয়ে যুক্ত হন এ ধরনের সামাজিক কার্যক্রমে। চার বছর পর গণপ্রজাতন্ত্রী বাংলাদেশ সরকারের ট্রাস্ট অ্যাক্ট অনুযায়ী ২০০৯ সালের ২৩ মে প্রথম আলো ট্রাস্ট গঠিত হলে প্রথম আলোর সকল তহবিল ও সামাজিক কার্যক্রমগুলো ট্রাস্টের আওতাভুক্ত হয়। প্রথম আলোর সব সামাজিক কর্মকাণ্ডের সম্মিলিত রূপ প্রথম আলো ট্রাস্ট। ট্রাস্টের মূল উদ্যোক্তা প্রথম আলো।

- প্রথম আলো ট্রাস্ট একটি অলাভজনক প্রতিষ্ঠান। জনসাধারণ এবং বিভিন্ন কল্যাণকামী প্রতিষ্ঠানের আর্থিক সহযোগিতায় পরিচালিত হয় প্রথম আলো ট্রাস্ট। প্রতি বছর নিয়মিত প্রথম আলো ট্রাস্টের আয়-ব্যয়ের বিবরণ হিসেব করা হয়ে থাকে।

প্রথম আলো ট্রাস্টের TIN (Taxpayer's Identification Numer) Certificate অনুযায়ী TIN: 173585938341.

কর্মকাণ্ড

  • অ্যাসিডদগ্ধ নারীদের জন্য সহায়ক তহবিল
  • মাদকবিরোধী আন্দোলন
  • অদ্বিতীয়া শিক্ষাবৃত্তি
  • ত্রাণ তহবিল
  • অদম্য মেধাবী তহবিল
  • আলোর পাঠশালা
  • সাভার রানা প্লাজার ক্ষতিগ্রস্থদের জন্য সহায়ক তহবিল
  • সাদত স্মৃতি পল্লী (বিনা মূল্যে স্বাস্থ্যসেবা এবং শিশু-কিশোরদের শিক্ষা ও মানসিক বিকাশ কেন্দ্র)

লক্ষ্য

অনাকাঙ্ক্ষিত দুর্যোগ বা দুরবস্থা যাদের আশা ও স্বপ্ন মুছে দেয়, এমন সব মানুষের জন্য ট্রাস্ট কাজ করে। অ্যাসিড-সন্ত্রাসে বিপর্যস্ত নারীদের পাশে থাকে ট্রাস্ট। কাজ করে মাদকাসক্ত যুবসমাজ, অর্থকষ্টে জর্জরিত অদম্য মেধাবী ছাত্রছাত্রীদের নিয়ে। ‘আলোর পাঠশালা’ নামে সারা দেশে শিক্ষার আলো ছড়িয়ে দিতে এবং রানা প্লাজায় ক্ষতিগ্রস্ত শ্রমিকদের জন্য নিয়েছে অনন্যসাধারণ উদ্যোগ। ট্রাস্টের উদ্যোগ ও সহযোগিতায় দেশ থেকে অ্যাসিড-সন্ত্রাস কমেছে। ট্রাস্টের উদ্দেশ্য, মাদক ছেড়ে উদ্দীপিত আশাবাদে এগিয়ে যাক তরুণ-তরুণীরা, দারিদ্র্যপীড়িত অদম্য মেধাবী তার অপরাজেয় স্বপ্নে জয় করুক পৃথিবী, প্রাকৃতিক দুর্যোগ পেছনে ফেলে জীবন বয়ে চলুক তার অদম্য ছন্দে। প্রথম আলো ট্রাস্ট চায়, দেশের মানুষের মুখের অমলিন হাসিটা ধরে রাখতে।

উদ্দেশ্য

  • মেধাবী ছাত্রছাত্রীর শিক্ষাজীবনে দারিদ্র্য যেন অভিশাপ হয়ে না ওঠে।
  • অনগ্রসর ও পিছিয়ে পড়া পরিবারের প্রথম কন্যাসন্তানদের শিক্ষা ও ক্ষমতায়নে কাজ করা।
  • বাংলাদেশের প্রত্যন্ত এলাকায় যেখানে বহুদিন শিক্ষার আলো পৌঁছায়নি, এ রকম অবহেলিত এলাকায় শিক্ষার আলো পৌঁছে দেওয়া।
  • অ্যাসিড-সন্ত্রাস নির্মূল করা। আর একটি মানুষের মুখও যেন অ্যাসিডে ঝলসে না যায়।
  • মাদক ছেড়ে কিশোর ও তরুণেরা যেন বেড়ে উঠতে পারে আলোকিত ভবিষ্যতের দিকে, সে লক্ষ্যে কাজ করা।
  • বন্যা, ঘূর্ণিঝড়, সাইক্লোন, মঙ্গাসহ নানা প্রাকৃতিক দুর্যোগে দেশের মানুষের পাশে দাঁড়ানো।
  • রানা প্লাজার ক্ষতিগ্রস্ত ব্যক্তিদের পুনর্বাসন এবং তাঁদের সন্তানদের শিক্ষা যেন অব্যাহত থাকে, সে লক্ষ্যে কাজ করা।
  • গ্রামের দরিদ্র মানুষের জন্য বিনা মূল্যে স্বাস্থ্যসেবা এবং শিশু-কিশোরদের শিক্ষা ও মানসিক বিকাশে কাজ করা।

এসবের বাইরেও মানুষের জরুরি যেকোনো প্রয়োজনে সাড়া দিতে প্রথম আলো ট্রাস্ট সদাপ্রস্তুত

নির্বাহী পর্ষদ

প্রথম আলো ট্রাস্ট ১১ জন ট্রাস্টির সমন্বয়ে পরিচালিত হয়। তাঁরা হলেন:

  • রূপালী চৌধুরী, ব্যবস্থাপনা পরিচালক, বার্জার বাংলাদেশ
  • সৈয়দ মাহবুবুর রহমান, ব্যবস্থাপনা পরিচালক ও সিইও, মিউচুয়াল ট্রাস্ট ব্যাংক লিমিটেড
  • তানজিব-উল-আলম, ব্যারিস্টার, তানজিব আলম অ্যান্ড অ্যাসোসিয়েটস
  • কুতুবউদ্দিন আহমেদ, চেয়ারম্যান, এনভয় গ্রুপ ও শেলটেক (প্রা.) লিমিটেড
  • মুহাম্মদ আজিজ খান, চেয়ারম্যান, সামিট করপোরেশন লিমিটেড
  • তাজিন আহমেদ, অধ্যক্ষ, সানিডেইল স্কুল
  • ড. পারভীন হাসান, উপাচার্য, সেন্ট্রাল উইমেন ইউনিভার্সিটি
  • জাহিদা ইস্পাহানি, পরিচালক, এম এম ইস্পাহানি লিমিটেড
  • মতিউর রহমান, সম্পাদক, প্রথম আলো
  • আনিসুল হক, সহযোগী সম্পাদক, প্রথম আলো
  • আব্দুল কাইয়ুম, সহযোগী সম্পাদক, প্রথম আলো

ট্রাস্টিদের সভায় আলাপ-আলোচনার মাধ্যমে ট্রাস্টের আওতাধীন বিষয়ে সব সিদ্ধান্ত নেওয়া হয়ে থাকে। পদাধিকারবলে প্রথম আলোর সম্পাদক ম্যানেজিং ট্রাস্টি, তিনি একজন সমন্বয়কারীসহ ট্রাস্ট পরিচালনা করে থাকেন। ট্রাস্টি বোর্ডের সভাপতি, সহসভাপতি ও কোষাধ্যক্ষ—এই তিন পদের জন্য দায়িত্বপ্রাপ্ত ব্যক্তিরা তিন বছরের জন্য নির্বাচিত হন। ট্রাস্টের বিভিন্ন বিষয়ে দায়িত্বপ্রাপ্ত উপদেষ্টারা পরামর্শ দিতে পারেন।

বর্তমানে এ ট্রাস্টি বোর্ডের সভাপতি রুপালী চৌধুরী, সহসভাপতি সৈয়দ মাহবুবুর রহমান ও কোষাধ্যক্ষ তানজিব-উল-আলম। ম্যানেজিং ট্রাস্টি হিসেবে দায়িত্ব পালন করছেন মতিউর রহমান।

ব্যবস্থাপনা কর্মী

একজন সমন্বয়কারীসহ আরও তিনজন কর্মী ট্রাস্টের সকল কার্যক্রম পরিচালনা করে থাকেন। তাঁরা হলেন:

  • মাহবুবা সুলতানা, সমন্বয়ক, প্রথম আলো ট্রাষ্ট
  • আহমেদ ফেরদৌস ফয়সাল, জ্যেষ্ঠ কর্মসূচি ব্যবস্থাপক
  • মো. নাজিম উদ্দিন, সহকারী কর্মসূচি ব্যবস্থাপক
  • শুভাশীষ প্রামানিক, জ্যেষ্ঠ নির্বাহী, ইভেন্টস অ্যান্ড অ্যাকাউন্টস