default-image

উত্তর কোরিয়ার নেতা কিম জং–উন jকোথায়? তাঁর স্বাস্থ্য নিয়ে আন্তর্জাতিক পর্যায়ে নানা গুঞ্জন। তবে তিনি দেশেই আছেন। আর আছেন বহাল তবিয়তে।দেশটির রাষ্ট্রীয় গণমাধ্যমে আজ বুধবার প্রচার করা এক ভিডিওতে তাঁকে কর্মকর্তাদের সঙ্গে গুরুত্বপূর্ণ বৈঠক করতে দেখা গেছে।

বার্তা সংস্থা এএফপির খবরে জানানো হয়, ক্ষমতাসীন ওয়ার্কার্স পার্টির একটি শীর্ষ কমিটির সঙ্গে বৈঠক করেছেন কিম।

সম্প্রতি দক্ষিণ কোরিয়ার গোয়েন্দা সংস্থার পক্ষ থেকে মন্তব্য করা হয়, সরকারি চাপ কমাতে কিম তাঁর কর্তৃত্ব কিছুটা কমিয়ে ক্ষমতা তাঁর বোন কিম ইয়ো জংয়ের হাতে দিয়েছেন।

দক্ষিণ কোরিয়ার প্রয়াত প্রেসিডেন্ট কিম দায়ে-জুংয়ের এক সাবেক সহযোগী ফেসবুকে বলেন, তিনি ভেবেছেন গুরুতর অসুস্থ উত্তর কোরিয়ার শাসক কিম জং–উন। তিনি কোমায় রয়েছেন। তাঁকে কোথাও দেখা যাচ্ছে না।

বিজ্ঞাপন

সংবাদ সংস্থা কেসিএনএ জানায়, গতকাল মঙ্গলবার দলের শীর্ষ কমিটির নেতাদের বৈঠকে সভাপতি হিসেবে উপস্থিত ছিলেন কিম। ওই বৈঠকে তিনি দেশের মহামারিকালীন জরুরি পরিস্থিতিতে ত্রুটি থাকার বিষয়ে সতর্ক করেন।
বিশ্বের বিভিন্ন দেশ করোনা মহামারি মোকাবিলায় হিমশিম খেলেও চীনের নিকটবর্তী দেশ উত্তর কোরিয়ায় কোনো সংক্রমণের তথ্য প্রকাশ করেনি।

রোডং সিনমুন সংবাদপত্রে প্রকাশিত ছবিতে দেখা যায়, সাদা স্যুট পরিহিত কিম বৈঠকে কথা বলছেন। একটি ছবিতে তাঁকে ধূমপান করতেও দেখা গেছে। কিম বৈঠকে কমিটির সদস্যদের বলেন, করোনা প্রতিরোধব্যবস্থায় কিছু ঘাটতি ছিল। শক্তিশালী ব্যবস্থা নিয়ে এ ত্রুটি দূর করার আহ্বান জানান তিনি।

গত মাসে পিয়ংইয়ংয়ের পক্ষ থেকে কেসং শহর লকডাউন করা হয়। এতে দক্ষিণের সীমান্ত বন্ধ করে দেওয়া হয়। এ মাসের শুরুর দিকে ওই বিধিনিষেধ তুলে নেওয়া হয়। সেখানে কোনো সংক্রমণের তথ্য প্রকাশ করা হয়নি।

বিজ্ঞাপন
উত্তর কোরিয়ার সর্বশক্তিমান নেতা কিম জং–উনের শরীর-স্বাস্থ্য নিয়ে ফের জল্পনা। কিমের ভগ্নস্বাস্থ্য নিয়ে গুঞ্জনে নতুন মাত্রা যোগ করে দক্ষিণ কোরিয়ার প্রয়াত প্রেসিডেন্ট কিম দায়ে জুংয়ের এক সাবেক পরামর্শদাতার চাঞ্চল্যকর দাবি, উত্তর কোরিয়ার শাসক কোমায় আচ্ছন্ন এবং সেটাই তাঁর বোন কিম ইয়ো জংয়ের হাতে ক্ষমতা ন্যস্ত করার কারণ।

কিমের বৈঠকে বাভি নামের আসন্ন ঘূর্ণিঝড়ের জরুরি প্রস্তুতি নিয়েও আলোচনা করা হয়। এ সপ্তাহে ওই ঘূর্ণিঝড় আঘাত হানতে পারে।

উত্তর কোরিয়ার সর্বশক্তিমান নেতা কিম জং–উনের শরীর-স্বাস্থ্য নিয়ে ফের জল্পনা। কিমের ভগ্নস্বাস্থ্য নিয়ে গুঞ্জনে নতুন মাত্রা যোগ করে দক্ষিণ কোরিয়ার প্রয়াত প্রেসিডেন্ট কিম দায়ে জুংয়ের এক সাবেক পরামর্শদাতার চাঞ্চল্যকর দাবি, উত্তর কোরিয়ার শাসক কোমায় আচ্ছন্ন এবং সেটাই তাঁর বোন কিম ইয়ো জংয়ের হাতে ক্ষমতা ন্যস্ত করার কারণ।

কয়েক দিন ধরেই কিম জংয়ের স্বাস্থ্য নিয়ে জল্পনাকল্পনা চলছিল। দক্ষিণ কোরিয়ার প্রয়াত প্রেসিডেন্ট কিম দায়ে জুংয়ের সাবেক এক সহযোগী দাবি করেন, গুরুতর অসুস্থতার কারণেই কিম জং–উন কিছু ক্ষমতা তাঁর বোন কিম ইয়ো জংয়ের হাতে তুলে দিয়েছেন। যে কারণে কিম ইয়ো জং এই মুহূর্তে হয়ে উঠেছেন দেশের দ্বিতীয় সর্বোচ্চ ক্ষমতাধর ব্যক্তি।

বিজ্ঞাপন

চাং সং-মিন নামের ওই উপদেষ্টা জানান, উত্তর কোরিয়ার কোনো নেতাই যদি অভ্যুত্থানের মাধ্যমে গদিচ্যুত না হন বা খুব অসুস্থ হয়ে শাসন করার মতো অবস্থায় না থাকেন, তাহলে নিজের ক্ষমতা, কর্তৃত্ব অন্যের হাতে তুলে দেন না। বস্তুত, এটাই পরম্পরায় হয়ে আসছে। উত্তর কোরিয়ার বর্তমান শাসক এর ব্যতিক্রম হবেন না।
দক্ষিণ কোরিয়ার ওই কূটনীতিকের আরও দাবি, সাম্প্রতিক কয়েক মাসে কিমের শরীর-স্বাস্থ্য ঘিরে জল্পনা, গুজব খারিজ করতে তাঁর যত ছবি উত্তর কোরিয়া প্রকাশ করেছে, সেসবই মিথ্যা, জাল। চাং বলেছেন, ‘আমার ধারণা, উনি কোমায়, তবে মারা যাননি। পুরোপুরি ক্ষমতা হাতবদলের পরিকল্পনা তৈরি হয়নি, কিন্তু দীর্ঘ সময় ধরে শূন্যতা বজায় রাখা চলতে পারে না, তাই কিম ইয়ো জংকে সামনে তুলে ধরা হচ্ছে।’

বিজ্ঞাপন

দক্ষিণ কোরিয়ার প্রতিরক্ষামন্ত্রীর বক্তব্যকে উদ্ধৃত করে সিএনএন এক প্রতিবেদনে জানায়, উত্তর কোরিয়ার নেতা কিম জং-উনের বোন কিম ইয়ো জং রাষ্ট্রটির গুরুত্বপূর্ণ পদে অধিষ্ঠিত হতে যাচ্ছেন। উত্তর কোরিয়ার ওপর নজরদারি করা দক্ষিণ কোরিয়ার জাতীয় গোয়েন্দা সংস্থার (এনআইএস) সূত্রমতে, ইয়ো হতে যাচ্ছেন উত্তর কোরিয়ার দ্বিতীয় সর্বোচ্চ ক্ষমতাধর ব্যক্তি।

কিম জং–উনের অসুস্থতার খবর ছড়িয়ে পড়ায় তৎপর হয়ে ওঠে পিয়ংইয়ংও। গত কয়েক মাসে নিজেদের দেশের রাষ্ট্রপ্রধানের বেশ কয়েকটি ছবি প্রকাশ করেছে তারা। সেই সঙ্গে দাবি করা হচ্ছে, কিম সুস্থ আছেন।

মন্তব্য পড়ুন 0