বিজ্ঞাপন
বিজ্ঞাপন

ক্রিস্টি আরও বলেন, এসব সামুদ্রিক মাছের বড় বড় কাঁটা রয়েছে, যা সেগুলোকে শিকারিদের থেকে রক্ষা করতে সাহায্য করে। যখন এগুলো শিকার করতে যায় লেপার্ড সিল, তখন নিশ্চিতভাবে সিলগুলোর শরীরের বিভিন্ন স্থানে অনেক ক্ষতের সৃষ্টি হয়। এমনকি কখনো কখনো সেগুলোর মুখেও মাছের বড় কাঁটা বিদ্ধ হয়ে থাকতে দেখা গেছে। একটি লেপার্ড সিলের শরীরে অন্তত ১৪টি ক্ষত ছিল।

লেপার্ড সিলকে শীর্ষ শিকারি প্রাণীদের একটি ভাবা হয়। খাবারের জন্য লেপার্ড সিল মূলত ক্রাস্টেসিয়ান, ছোট মাছ, পাখি, অন্যান্য সিলসহ বিভিন্ন ধরনের প্রাণী শিকার করে থাকে। এই প্রাণীর খাদ্যাভ্যাস নিয়ে এর আগে অনেক গবেষণা হলেও সেখানে হাঙর ধরে খাওয়ার প্রমাণ পাননি গবেষকেরা।

বিস্তৃত একটি গবেষণার অংশ হিসেবে নিউজিল্যান্ডে লেপার্ড সিলের খাদ্যাভ্যাস নিয়ে গবেষণা করা হয়। গবেষকেরা ৩৯টি শিকারের ঘটনা পর্যবেক্ষণ করেন এবং ১৯৪২ সাল থেকে ২০১৯ সাল পর্যন্ত ১২৭টি নমুনা নিয়ে পরীক্ষা করেন।

সমুদ্রে একটি শীর্ষস্থানীয় শিকারি প্রাণীর সঙ্গে আরেকটি শীর্ষস্থানীয় শিকারি প্রাণীর লড়াই সব সময়ই থাকে। ফলে সেগুলো একে অন্যকে ঘায়েল করার চেষ্টায় থাকে। এই বিষয়ে ক্রিস্টি বলেছেন, ‘একটি শীর্ষস্থানীয় শিকারি প্রাণী আরেকটি শীর্ষস্থানীয় শিকারি প্রাণীকে খাওয়ার জন্য শিকার করার ঘটনা বেশ বিস্ময়ের। যদি লেপার্ড সিল হাঙর শিকার ও খাওয়ার অভ্যাস ধরে রাখে, তাহলে একসময় হাঙরের সংখ্যা কমে যেতে পারে।’

বিশ্ব থেকে আরও পড়ুন
মন্তব্য করুন
বিজ্ঞাপন
বিজ্ঞাপন