তিনি ইন্দোনেশিয়ার পশ্চিম জাভার মাজালেঙকারের বাসিন্দা, নাম তঁার কান। তিনি পেশায় কৃষক। একের পর এক বিয়ে করায় অনেকে তাঁকে ‘ইন্দোনেশিয়ার প্লেবয় কিং’ নামে ডাকে।

দেশটির সংবাদমাধ্যমের খবর, কানের প্রথম স্ত্রী তাঁর চেয়ে বয়সে দুই বছরের বড় ছিল। বিয়ের দুই বছরের মাথায় তাঁর ওই স্ত্রী বিচ্ছেদ নেন। ‘দুর্বল মানসিকতার’ কারণে স্ত্রী তাঁকে ছেড়ে যান। কান অবশ্য তাঁর এই ‘দুর্বল মানসিকতার’ ব্যাখ্যা দেননি।

কান স্বীকার করেন এ ঘটনায় তিনি বেশ রেগে যান। তাই, তিনি চেয়েছিলেন ‘আধ্যাত্মিক’ জ্ঞান, যাতে বহু নারী তাঁর প্রেমে পড়ে। কান বলেন, তবে তিনি এমন কিছু করতে চাননি, যা নারীদের জন্য ভালো হবে না। তিনি নারীদের আবেগ নিয়ে খেলতেও রাজি নন। ‘অনৈতিক কাজ না করে বিয়ে করাই ভালো’ যোগ করেন কান।

শিগগিরই ৮৮ বারের মতো বিয়ের পিঁড়িতে বসতে যাচ্ছেন কান। মজার বিষয় হলো, এবার তিনি তাঁর সাবেক স্ত্রীকে আবার বিয়ে করছেন। ওই নারী কানের ৮৬তম স্ত্রী ছিলেন। সে সময় বিয়ের এক মাসের মাথায় বিচ্ছেদ হয় তাঁদের। আগের ৮৭ জন স্ত্রীর ঘরে কানের কতজন সন্তান রয়েছে, তা জানা যায়নি।