তবে ফ্লোরিডার ফোর্ট লডারডেলে যা পরিবহন করা হলো, তা রীতিমতো ভয়ংকর। এক যাত্রী তাঁর প্রক্রিয়াজাত মুরগির ভেতরে করে পিস্তল পরিবহনের চেষ্টা করেছিলেন। তবে সেটা টিএসএর চোখ ফাঁকি দিতে পারেনি।

টিএসএ এই ঘটনার ছবি সামাজিক যোগাযোগমাধ্যম ইনস্টাগ্রামে প্রকাশ করেছে। এতে দেখা যায়, প্রক্রিয়াজাত একটি মুরগির পেটের ভেতরে ওই যাত্রী একটি পিস্তল ঢুকিয়ে রেখেছেন। তবে সেটি ঢুকিয়ে রাখার আগে পিস্তলটি আবরণে পেঁচিয়ে নিয়েছেন যাতে সেটি নষ্ট না হয়।

এই ছবির ক্যাপশনে টিএসএ লিখেছে, অস্ত্র ও গোলাবারুদ পরিবহনের ক্ষেত্রে একটি নিয়ম আছে। সেটা আপনার পছন্দ হতেও পারে, না–ও হতে পারে।

যুক্তরাষ্ট্রে আগ্নেয়াস্ত্র পরিবহনের সুযোগ রয়েছে; যা অন্য অনেক দেশের তুলনায় সহজ। টিএসএর নিয়ম অনুসারে, যাত্রীরা তাঁর হাতব্যাগ ও লাগেজে যেমন খাবার পরিবহন করতে পারবেন, তেমনি বন্দুকও বহন করতে পারবেন। তবে এ ক্ষেত্রে বন্দুকে কোনো গুলি রাখা যাবে না। আর বন্দুক শুধু লাগেজে পরিবহন করা যাবে। তবে এর আগে কাউন্টার থেকে সেটার অনুমোদন নিতে হবে।

ফ্লোরিডার ফোর্ট লডারডেল–হলিউড বিমানবন্দর থেকে এই পিস্তল উদ্ধার করা হয়। এরপর সেটির ছবি ইনস্টাগ্রামে প্রকাশ করা হলে ব্যাপক সাড়া ফেলে। ইনস্টাগ্রাম ব্যবহারকারীরাও এ নিয়ে বেশ মজা করেছেন। এক ব্যবহারকারী লিখেছেন, এই ব্যক্তি অবশ্যই ফ্লোরিডার। আরেকজন লিখেছেন, মুরগি রান্নার জন্য এটা অসাধারণ উপাদান।